বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ৪৭ বছর ধরে জুতা ছাড়া হেঁটে বেড়ানো বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোটবগী ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইছাহাক আলী শরীফ (৯৩) আর নেই। 

তার পরিবারের সদস্যরা সমকালকে জানান, বার্ধক্যজনিত কারণে রোববার রাত ১০টার দিকে তিনি নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মৃত্যুকালে চার ছেলে ও চার মেয়ে রেখে গেছেন তিনি। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় তার নিজ বাড়িতে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।  

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যার প্রতিবাদে ৪৭ বছর খালি পায়ে হেঁটেছেন ইছাহাক আলী শরীফ। এলাকায় তিনি ‘মুজিব পাগল শরীফ’ নামেও খ্যাত হন।

এ নিয়ে ২০২১ সালের ১৫ আগস্ট সমকালে ‘৪৬ বছর ধরে জুতা পরেন না তিনি’ শিরোনামে একটি সংবাদও প্রকাশিত হয়েছিল। ইছাহাক আলী শরীফ তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছিলেন। কিন্তু তার সে আশা পূরণ হওয়ার আগেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন তিনি।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যার পর থেকেই বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন ইসাহাক আলী শরীফ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড কিছুতেই  মেনে নিতে পারেননি তিনি।

শেখ মুজিবকে হারানোর শোক বুকে ধারণ করে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত খালি পায়ে ও কালো পোশাকে চলাফেরা করেছেন ইছাহাক আলী শরীফ। তিনি বলতেন, যে মাটিতে শেখ মুজিব চিরনিদ্রায় শায়িত সে মাটিতে তিনি জুতা পায়ে হাঁটতে পারবেন না।

‘মুজিব পাগল’ ইসাহাক আলী শরীফের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন তালতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা  চেয়ারম্যান রেজবিউল কবির জোমাদ্দার, সম্পাদক তৌফিকুজ্জামান তনুসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।