পণ্য বিক্রয় চুক্তি-সংক্রান্ত জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিআইএসজি বাংলাদেশকে অনুমোদনের সুপারিশ এসেছে এক ওয়েবিনারে। আলোচকরা বলেছেন, এ কনভেনশন গ্রহণ করলে পণ্য সরবরাহে সুশাসন এবং লেনদেন খরচ কমানোর নিশ্চয়তা দেবে এবং আদালতের বাইরে আন্তর্জাতিক বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তিতে সহায়তা করবে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল আরবিট্রেশন সেন্টার (বিয়াক) এবং ইউনাইটেড নেশন কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড ল (ইউএনসিআইটিআরএএল)-এর রিজিওনাল সেন্টার ফর এশিয়া অ্যান্ড দ্য প্যাসিফিকের (আরসিএপি) সঙ্গে যৌথভাবে 'বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি এবং পণ্যের আন্তর্জাতিক বিক্রয় :সিআইএসজি থেকে লাভবান হওয়ার সময়?' শিরোনামে এ ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়। ওয়েবিনার সঞ্চলনা করেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) অধ্যাপক ড. শাহ মো. আহসান হাবীব।

বিয়াক বোর্ডের সভাপতি ও ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অব কমার্স, বাংলাদেশের সভাপতি মাহবুবুর রহমান বলেন, সিআইএসজি কনভেনশন গ্রহণ করলে বাংলাদেশ সামগ্রিকভাবে উপকৃত হবে। কারণ, এ কনভেনশন আন্তর্জাতিক বিক্রয়ের ক্ষেত্রে আদালতের বাইরে বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য একটি অভিন্ন ব্যবস্থার মাধ্যমে পণ্যের বাণিজ্যিক লেনদেনের নিশ্চয়তা দেবে।

ইউএনসিআইটিআরএএলের এশিয়া প্যাসিফিক আঞ্চলিক কেন্দ্রের প্রধান আথিটা কোমিন্ডার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক আইনকে আরও আধুনিকীকরণের বিষয়ে মত প্রকাশ করেন।

ইউএনসিআইটিআরএএলের রিপাবলিক অব কোরিয়ার আইনি কর্মকর্তা লুকা ক্যাসটেলানি আন্তঃসীমান্তে পণ্যের সরবরাহে সুশাসন এবং আইন প্রক্রিয়া বৃদ্ধি এবং লেনদেনের খরচ কমাতে কনভেনশন গ্রহণের বিষয়টি বিবেচনা করতে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানান। এ ধরনের পদক্ষেপ মহামারি-পরবর্তী অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে মত দেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রাক্তন নির্বাহী পরিচালক মো. আহসান উল্লাহ বলেন, সিআইএসজি আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের অসুবিধা মোকাবিলায় এবং পক্ষদ্বয়ের স্বার্থ রক্ষায় সহায়তা করবে। কনভেনশনের সুবিধা পেতে বাংলাদেশ সরকারকে কনভেনশন স্বাক্ষর করার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করার আহ্বান জানান তিনি।
ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি রিজওয়ান রহমান বলেন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং চুক্তির জন্য উপযুক্ত এবং কার্যকর বিরোধ নিষ্পত্তি নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃত বিভিন্ন কনভেনশন গ্রহণ করতে হবে।

ড. শাহ মো. আহসান হাবীব রপ্তানি বাণিজ্যের সম্প্রসারণ করতে এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীদের ঝুঁকি থেকে রক্ষা করতে সিআইএসজির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আইন সংশোধনের সুপারিশ করেন।