বকশীগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বড় ভাই মুসা মিয়ার শাবলের আঘাতে খুন হয়েছেন জামাল উদ্দিন। রোববার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয় তার।

বকশীগঞ্জ উপজেলার ধানুয়া কামালপুর ইউনিয়নের মাঝগেদরা গ্রামের বাসিন্দা জামাল উদ্দিন। তার সঙ্গে সৎভাই মুসা মিয়ার জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এর জেরে ধরে গত শনিবার রাত ১১টার দিকে লাঠিসোঠা নিয়ে জামাল উদ্দিনের বাড়িতে হামলা চালায় মুসা মিয়া, তার জামাতা মিস্টার আলী, ভাই এনামুল হক ও হেবুল মিয়াসহ ২০-২৫ জন। বাধা দিলে জামাল উদ্দিনকে কুপিয়ে জখম করা হয়। তাদের হামলায় জামাল উদ্দিনের স্ত্রী হেলেনা বেগম, তার ভাই সোনাহার আলী, সোলায়মান হক, বোন আজেমা বেগমসহ কমপক্ষে ছয়জন আহত হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় জামাল উদ্দিনকে রাতেই ময়মনিসংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলেন। পরে ঢাকায় নেওয়ার পথে গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সেই তার মৃত্যু হয়। পরে তাকে বাড়ি নিয়ে এলে সন্ধ্যায় বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। ঘটনার পরেই গা-ঢাকা দিয়েছে মুসা মিয়া ও তার সহযোগীরা।

সোলায়মান হক বলেন, সৎভাই মুসার শাবলের আঘাতেই প্রাণ গেল জামাল উদ্দিনের। তার তিন সন্তান এতিম হলো। এ ঘটনায় মামলা করা হবে।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ তরিকুল ইসলাম বলেন, লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান চলছে।