সপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যার দায়ে জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার দাবি করেছেন যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্‌ পরশ। তিনি বলেছেন, জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার আজকের প্রজন্মের সময়ের দাবি। যেটা খুব শিগগিরই এ দেশের মাটিতে দেখা যাবে।

শুক্রবার রাজধানীর মানিকদিতে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড আদর্শ বিদ্যানিকেতনে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঈদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দ্বিতীয় ছেলে শহীদ লেফটেন্যান্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ জামালের ৬৯তম জন্মদিন ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শেখ ফজলে শামস্‌ পরশ বলেন, জিয়াউর রহমান সরাসরি মুক্তিযোদ্ধা শেখ জামাল হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল। শুধু তাই নয়, শেখ জামালসহ অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধা সেনা অফিসারের রক্তে রঞ্জিত জিয়াউর রহমানের হাত।

শেখ জামালের জীবন ও কর্মের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, শেখ জামাল মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে একজন সাহসী বীর মুক্তিযোদ্ধা। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন গর্বিত সেনা অফিসার ও দেশপ্রেমের মূর্ত প্রতীক ছিলেন তিনি।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল ইসলাম, মৃণাল কান্তি জোদ্দার, তাজউদ্দিন আহমেদ, বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, সুব্রত পাল, সাইফুর রহমান সোহাগ, জহির উদ্দিন খসরু, জয়দেব নন্দী, মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, জাকির হোসেন বাবুল, মাইন উদ্দিন রানা, ইসমাইল হোসেন, এইচএম রেজাউল করিম রেজা প্রমুখ।