করোনার মধ্যে ইবোলাও পিছু ছাড়েনি কঙ্গোর

প্রকাশ: ০৩ জুন ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস প্রকোপের মধ্যেই আফ্রিকার দেশ গণতান্ত্রিক কঙ্গোতে (ডিআরসি) নতুন করে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে ইবোলা ভাইরাস। এতে গত কয়েকদিনে ১৫ বছরের এক কিশোরীসহ ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। জাতিসংঘ শিশু তহবিল ইউনিসেফ মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এদিন কঙ্গোর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে ইবোলা ভাইরাসের নতুন প্রাদুর্ভাবকে মহামারি হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। করোনার মতো ইবোলাও যেন ছড়িয়ে না পড়ে, সেজন্য হুশিয়ারি দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। খবর সিএনএনের। 

কঙ্গোসহ পশ্চিম আফ্রিকার লাইবেরিয়া, সিয়েরালিয়ন, গিনিসহ বেশ কয়েকটি দেশ ইবোলা ভাইরাস মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছিল। ২০১৮ সালের আগস্টে কঙ্গোতে শুরু হয় ইবোলা মহামারি। এই মহামারিতে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২২০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সম্প্রতি টানা কয়েক মাস ধরে নতুন করে কোনও আক্রান্ত শনাক্ত না হওয়ায় কঙ্গো সরকারের পক্ষ থেকে ইবোলা মহামারির সমাপ্তি ঘোষণার পরিকল্পনা করা হচ্ছিল। এর মধ্যে দেশটিতে নতুন আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে।

কঙ্গোর স্বাস্থ্যমন্ত্রী এতেনি লংগন্দো জানান, পশ্চিমাঞ্চলীয় এমবান্দাকা শহরে ইবোলা ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। এমবান্দাকায় ৫ জন মারা গেছেন। যাদের শরীরে ইবোলা ভাইরাস পাওয়া গেছে। আমরা খুব দ্রুত সেখানে ভ্যাকসিন এবং ওষুধ পাঠানোর চেষ্টা করছি।

ইউনিসেফ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ওই এলাকায় আরও চারজন আক্রান্ত হয়েছে। তারা এমবান্দাকার ওয়াংগাতা হাসপাতালে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

এ নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান ডা. টেড্রোস অ্যাডহানম ঘেব্রেইয়েসাস বলেন, এখন কেবল করোনাভাইরাস মানুষের জন্য হুমকির কারণ নয়, ইবোলাও যেন মহামারি আকারে ছড়াতে না পারে, সেদিকেও খেয়াল রাখা দরকার।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, কঙ্গোতে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ হাজার ১৯৫ জন। মারা গেছেন ৭২ জন।