যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন দল কনজারভেটিভ পার্টির এমপি স্যার ডেভিড অ্যামেস হত্যারকাণ্ডকে একটি সন্ত্রাসী ঘটনা বলছে দেশটির পুলিশ। এ ঘটনা জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারে বলেও মনে করছে তারা।

শনিবার বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়। এর আগে শুক্রবার নিজের নির্বাচনী এলাকা অ্যাসেক্সের একটি গির্জায় বাসিন্দাদের সঙ্গে বৈঠকের সময় হঠাৎ ছুরিকাঘাত করা হয় সিনিয়র এ আইনপ্রণেতার ওপর।

এ হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ২৫ বছর বয়সী এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, ঘটনাস্থল থেকে তারা একটি ছুরিও জব্দ করেছে। এছাড়া এ ঘটনার সঙ্গে তারা আর কাউকে খুঁজছে না।

মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনা জঙ্গিবাদের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে পারে। তদন্তের অংশ হিসেবে লন্ডনের দুটি স্থানে তাল্লাশি চালানো হয়েছে। এছাড়া পুলিশ ধারণা করছে, হামলায় গ্রেপ্তার যুবক একাই ছিলেন। এরপরও আর কারও সম্পৃক্ততা আছে কি-না, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তিনি বর্তমানে অ্যাসেক্স পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন।

ডেভিড অ্যামেস কনজারভেটিভ পার্টির হয়ে গত চার দশক ধরে এমপির দায়িত্ব পালন করছিলেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।

পুলিশ বলছে, শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টার পর তারা এ হামলার খবর পান। এবং সেখানে ছুটে গিয়ে একজনকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন।

পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে জরুরি বিভাগের কর্মীরা তাকে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ধারণা করা হচ্ছে, ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে কী কারণ থাকতে পারে, এ বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে এখনও স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি।

ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেন, ডেভিড অ্যামেস একজন মহান ব্যক্তি ছিলেন। একজন ভালো বন্ধু ছিলেন আমার। গণতান্ত্রিক ভূমিকা পালন করার সময় তাকে হত্যা করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যে গত পাঁচবছরে ডেভিড অ্যামেসসহ দুইজন এমপি হামলায় নিহত হলেন। এর আগে ২০১৬ সালে লেবার পার্টির এমপি জো কক্সকে হত্যা করা হয়। উত্তর ইংল্যান্ডে নিজের নির্বাচনী এলাকায় প্রথমে তাকে গুলি ও পরে ছুরিকাঘাত করা হয়েছিল।