সরকারবিরোধী আন্দোলনের জেরে বাগদাদে কারফিউ জারি

প্রকাশ: ০৩ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ০৩ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

ইরাকে চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলনে পুলিশ সহিংসতার জেরে রাজধানী বাগদাদে কারফিউ জারি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে দেশের বহু অঞ্চলে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। 

বাগদাদে মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া এ আন্দোলনে একজন পুলিশ কর্মকর্তাসহ এ পর্যন্ত ১৩ জন নিহত এবং অনন্ত ৪০০ জন আহত হয়েছেন। খবর এএফপির 

প্রথমদিকে সরকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে বিক্ষোভকারীরা রাজপথে নামলেও পরবর্তীতে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষে বিক্ষোভ সহিংসতায় রুপ নেয়। 

ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদেল মেহেদী সহিংসতা রোধে বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ টা পর্যন্ত বাগদাদ শহরে কারফিউ জারি করেছেন। সরকারি ওই আদেশে কারফিউ চলাকালীন সময়ে এবং পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত শহরে সব ধরনের যানবাহন এবং ব্যক্তিগত চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 

তবে এ বিবৃতিতে বাগদাদ বিমানবন্দর, অ্যাম্বুলেন্স, হাসপাতাল, বিদ্যুৎ, পানি বিভাগের কর্মী এবং ধর্মীয় তীর্থ যাত্রীদের কারফিউয়ের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, সকালের পরে বিক্ষোভকারীরা আবারও নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছিল।ওই সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বাগদাদের তাহরির স্কয়ার থেকে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে বাতাসে কয়েক রাউণ্ড গুলি ছোড়ে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী আদেল আবদুল মেহেদী এক বছর আগে ক্ষমতা গ্রহণের পর এটাই দেশজুড়ে এটাই সবচেয়ে বড় বিক্ষোভ। তবে সেটা বিচ্ছিন্নভাবে দেশের নানা প্রান্তে হচ্ছে। সরকারি দুর্নীতি, নিম্ন মানের সেবা এবং উচ্চ হারে বেকারত্বের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করায় ইরাকের আরও তিন শহর নাসিরিয়া, আমারা এবং হিল্লা শহরে এরই মধ্যে কারফিউ জারি রয়েছে।