তুরস্কের ইস্তাম্বুলে বিরূপ আবহাওয়ায় ফ্লাইট বাতিল হওয়ায় বাংলার সমৃদ্ধি জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমানের মরদেহ রোববার দেশে আসছে না।

সোমবার দুপুরে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজে হাদিসুরের কফিন ঢাকায় পৌঁছাবে বলে বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ক্যাপ্টেন আবু সুফিয়ান জানিয়েছেন।

রোমানিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. দাউদ আলী বলেন, বিমানটি ইস্তাম্বুল পৌঁছেছে। কিন্তু সেখানে ভারী তুষারপাতের কারণে আজকের যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। শুধু এ বিমানটি নয়, খারাপ আবহাওয়ার কারণে ইস্তাম্বুল থেকে শখানেক বিমানের যাত্রা বাতিল হয়েছে। আগামীকাল আবহাওয়া ঠিক থাকলে বিমানটি রওনা হওয়ার কথা রয়েছে। সব ঠিক থাকলে সোমবার বেলা ১২টা ১৫ মিনিটে বিমানটি ঢাকা পৌঁছাতে পারে।

ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে আটকে থাকা অবস্থায় ২ মার্চ রকেট হামলার শিকার হয় বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের মালিকানাধীন জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’। তাতে নিহত হন ওই জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর।

নিহত হাদিসুরের সঙ্গে থাকা ওই জাহাজের সহকর্মীরা অনেক পথ পেরিয়ে গত বুধবার ঢাকায় আসেন। জাহাজ থেকে নেমে নিরাপদ আশ্রয়ের বাংকার পর্যন্ত মরদেহ নিয়ে এসেছিলেন তারা। তবে যুদ্ধের ময়দান থেকে আর তা তাদের সঙ্গে আনতে পারেননি। হাদিসুরের মরদেহ রাখা হয়েছিল বাংকারের ফ্রিজারে।

শুক্রবার ভোরে ইউক্রেন থেকে রওনা হয়ে হাদিসুরের লাশবাহী গাড়ি রাতে প্রতিবেশী দেশ রোমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্টে পৌঁছায়। সেখান থেকে টার্কিশ এয়ারওয়েজের একটি কার্গো ফ্লাইটে শনিবার রাতে কফিন পাঠানো হয় দেশের পথে।