প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে অনেকেই অনেক ইচ্ছা ব্যক্ত করতে পারেন। তবে কোন পদ্ধতিতে ভোট নেওয়া হবে, সবকিছু পর্যালোচনা করে সে সিদ্ধান্ত নেবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে সিইসি এ কথা বলেন।

এসময় কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গ্রহণের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ৩০০ সংসদীয় আসনে ইভিএমে ভোট করার মতো সামর্থ্য এই মুহূর্তে ইসির নেই।

তিনি বলেন, ‘ভোট গ্রহণ কীভাবে হবে, ইভিএমে কীভাবে হবে, ব্যালটে কীভাবে হবে, কতটা ইভিএমে হবে, কতটা ব্যালটে হবে—এ ব্যাপারে কোনো সুস্পষ্ট সিদ্ধান্ত গ্রহণ করিনি। ব্যাপারটি পর্যালোচনাধীন।’

গত শনিবার আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইঙ্গিত দেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে সব আসনে ভোট হবে ইভিএমে। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলো ভোটে ইভিএমের ব্যবহারের বিরোধিতা করছে। এ বিষয়ে সিইসি বলেন, ‘হয়তো আপনারা বলতে পারেন, প্রধানমন্ত্রী একটা বক্তব্য দিয়েছেন। বিভিন্ন দল থেকে বক্তব্য আসতে পারে। আমি জানি না, এটা প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, না আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেছেন, স্পষ্ট নয়। আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর বলা, বিএনপির প্রধানের বলা, জাসদের বলা—এগুলো ভিন্ন জিনিস।’