নারীর বিরুদ্ধে সব ধরনের বৈষম্য বিলোপ সনদ-সংক্রান্ত (সিডও) জাতিসংঘ কমিটির সাবেক চেয়ারপারসন সালমা খান আর নেই। গতকাল শনিবার দুপুর ২টার দিকে রাজধানীর গুলশানের বাসায় তিনি মারা যান (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)।
সালমা খানের স্বামী সাবেক মন্ত্রী হাবিব উল্লাহ খান বলেন, সালমাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর লাশ হাসপাতালের হিমঘরে রাখা আছে। যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী মেয়ে উমানা হক দেশে আসতে পারবেন কিনা, তা জানার পর মরদেহ দাফনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মৃত্যুকালে সালমা খানের বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। গুলশানের বাসায় তিনি ও তাঁর স্বামী থাকতেন। দু'জনই দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন।
সালমা খান কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯৩ সালে প্রথম এবং ১৯৯৭ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে সিডও কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। আর ১৯৯৭-৯৮ সালে প্রথম এশীয় হিসেবে চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন।
সালমা খান এনজিও কোয়ালিশন ফর বেইজিং প্ল্যাটফর্ম ফর অ্যাকশনের সাবেক চেয়ারপারসন ছিলেন। উইমেন ফর উইমেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা এবং ইন্দোনেশিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন এবং ফুলব্রাইট স্কলার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উন্নয়ন অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর করেন।

বিষয় : সালমা খান সিডও

মন্তব্য করুন