দীর্ঘদিন পর কেন্দ্রীয় কমিটির নীতিনির্ধারণী বৈঠক করেছে হেফাজতে ইসলাম। সেই বৈঠকের সিদ্ধান্ত নিয়ে কথা বলতে আজ সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনও ডাকে সংগঠনটি। চার ঘণ্টার মধ্যে সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরেও আসে তারা। বাতিল করা হয় সংবাদ সম্মেলন।

জানা গেছে, কমিটি গঠন নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতা, সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হতে নীতিনির্ধারকদের একাংশের সম্মতি না থাকা ও প্রশাসন থেকে ইতিবাচক সাড়া না পাওয়ায় সংবাদ সম্মেলন ডেকেও বাতিল করা হয়েছে। হেফাজতের দায়িত্বশীল কেউ স্বনামে বিষয়টি স্বীকার না করলেও কমিটি গঠন নিয়ে কিছুটা দ্বিধাবিভক্তি ছিল বলে স্বীকার করেছেন।

এদিকে দায়ের করা সব মামলা প্রত্যাহার ও কারাবন্দি নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে এবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হচ্ছে হেফাজত। এ দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর চিঠিও দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। আবার ব্যক্তি উদ্যোগের কোনো কাজে হেফাজতের পদ-পদবি ব্যবহার না করার জন্য নেতাকর্মীদের সতর্ক করেন হেফাজতের আমির। সংবাদ সম্মেলন বাতিল করে আজ সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে সংগঠনটি।

হঠাৎ করে সংবাদ সম্মেলন বাতিল করা প্রসঙ্গে হেফাজতের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মীর ইদরীস বলেন, 'যে সময়ের মধ্যে কমিটি গঠনের কাজ শেষ করতে পারব বলে আমরা ধারণা করেছিলাম, এর চেয়ে আমাদের অনেক বেশি সময় লেগেছে। এ জন্য দুপুরে সংবাদ সম্মেলন ডেকেও স্থগিত করা হয়।' বৈঠকে কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর কমিটি সম্প্রসারণ, চট্টগ্রাম নগর আহ্বায়ক কমিটি গঠন, ডিসেম্বরে ওলামা মাশায়েখ সম্মেলন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবরে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ ছাড়া দেশজুড়ে জেলা কমিটি গঠনে একটি উপকমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বৈঠকে প্রচার সম্পাদক মাওলানা মুহিউদ্দীন রাব্বানী ও দাওয়া সম্পাদক মাওলানা আবদুল কাইয়ুম সোবহানীকে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সচিব করা হয়েছে। এ ছাড়াও মুফতি কিফায়াতুল্লাহ আযহারীকে প্রচার সম্পাদক ও মাওলানা রাশেদ বিন নুরকে দপ্তর সম্পাদক করা হয়েছে। এ ছাড়া ২৯ জনকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে ও ১১ জনকে ঢাকা মহানগর কমিটিতে নতুন করে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। মাওলানা তাজুল ইসলামকে আহ্বায়ক এবং মাওলানা মাওলানা লোকমান হাকিমকে সদস্য সচিব করে ১৭ সদস্যের চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। জেলা কমিটি গঠন করার জন্য মহাসচিব সাজিদুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের উপকমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার সকালে দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসায় হেফাজতের আমির মুহিবুল্লাহ বাবুনগরীর সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুহাম্মদ ইয়াহইয়া, মাওলানা সালাউদ্দিন নানুপুরী, মাওলানা আবদুল আউয়াল, মুফতি জসিম উদ্দিন, মাওলানা ফুরকানুল্লাহ খলিল, মহাসচিব সাজিদুর রহমান, মাওলানা মাহমুদুল হাসান ফতেহপুরী, মাওলানা জহুরুল ইসলাম, মাওলানা মুহিউদ্দিন রব্বানী, মাওলানা মীর ইদরীস, মুফতি মোহাম্মদ আলী, মাওলানা আবদুল কাইয়ুম সুবাহানী, মুফতি কিফায়াতুল্লাহ আযহারী, সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার, মাওলানা রাশেদ বিন নুর প্রমুখ।