ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪

বিচারকের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ স্লোগান

হাইকোর্টে হাজিরা দিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ২১ আইনজীবী

হাইকোর্টে হাজিরা দিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ২১ আইনজীবী

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৬:২২ | আপডেট: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৬:২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা জজ শারমিন নিগারের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ স্লোগান ও বিচার বিঘ্নিত করার অভিযোগে জেলা আইনজীবী সমিতির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদকসহ ২১ জন হাইকোর্টে হাজিরা দিয়েছেন।

এরপর সময় চেয়ে করা তাঁদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আগামী ১ মার্চ পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়। ওই দিনও তাঁদের আদালতে হাজির থাকতে হবে।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিল সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রোববার এই আদেশ দেন।

গত ৫ ও ৮ জানুয়ারি এজলাস চলাকালে কয়েকজন আইনজীবী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা জজ শারমিন নিগারের বিরুদ্ধে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ স্লোগান দেন। তাঁদের বিরুদ্ধে বিচারকাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে।

বিষয়টি হাইকোর্টে উত্থাপিত হলে ১০ জানুয়ারি আদালত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আইনজীবী সমিতির তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানসহ ২১ জনের নামে আদালত অবমাননার স্বতঃপ্রণোদিত রুল দেন। রুলের ব্যাখ্যা দিতে তাঁদের ২৩ জানুয়ারি আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছিল। হাজিরা দেওয়ার পর সময় চেয়ে করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুনানির দিন ছিল আজ।

আদালতে আজ ২১ আইনজীবীর পক্ষে শুনানি করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি মোমতাজ উদ্দিন ফকির, সম্পাদক আবদুন নূর দুলাল এবং বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য মোহাম্মদ সাঈদ আহমেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

শুনানিতে মোমতাজ উদ্দিন ফকির বলেন, অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। আদালত এক মাস সময় দেন। সবাই উপস্থিত হয়েছেন। তখন আদালত বলেন, 'জবাব (রুল) দেননি?' মোমতাজ উদ্দিন ফকির 'না' সূচক জবাব দেন। পরে প্রাথমিক শুনানি নিয়ে আদালত ১ মার্চ পরবর্তী দিন ধার্য করেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুই বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীদের বিরোধের জের ধরে প্রায় দেড় মাস অচল ছিল জেলার সব আদালত। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট ২৩ আইনজীবীকে তলব করেছেন হাইকোর্টের দুটি বেঞ্চ। তাঁদের বিরুদ্ধে আদালত অবমানার পৃথক রুলও জারি করা হয়েছে। যার শুনানি এখনও শুরু হয়নি। রুলের জবাবও দেননি আইনজীবীরা।

প্রসঙ্গত, আইনমন্ত্রীর মধ্যস্থতায় বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটি ছাড়া অন্য সব আদালতে বিচারকাজ স্বাভাবিক হয়েছে।

আরও পড়ুন

×