ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০২৪

অ্যামচেমের সভায় বক্তারা

বিনিয়োগ আকর্ষণে টেকসই নীতিকাঠামো প্রয়োজন

বিনিয়োগ আকর্ষণে টেকসই নীতিকাঠামো প্রয়োজন

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৮:০০ | আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ০৫:২৬

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং টেকসই নীতিকাঠামো প্রয়োজন। এ ছাড়া রাজস্ব আহরণ পদ্ধতি আরও সহজ করা এবং আমলাতান্ত্রিক জটিলতা দূর করতেও পদক্ষেপ নিতে হবে। গতকাল রোববার 'ইনভেস্টমেন্ট ফর স্মার্ট বাংলাদেশ' শীর্ষক এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা। আমেরিকার চেম্বার অব কমার্স ইন বাংলাদেশ (অ্যামচেম) রাজধানীর বনানীর একটি হোটেলে এ আয়োজন করে।

সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ এরশাদ আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় অতিথি ছিলেন বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মিয়া। তিনি বলেন, ব্যবসা শুরুর প্রক্রিয়া আরও সহজ করতে ২৩টি সরকারি সংস্থার ১০০টি সেবা বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিস (ওএসএস) থেকে দেওয়া হবে। বর্তমানে ৬৭টি সেবা এর আওতায় রয়েছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্বব্যাপী বিনিয়োগ কমেছে। এর পরও গত চার মাসে দেশে ৪৬০ কোটি ডলারের বিনিয়োগ প্রতিশ্রুতি পাওয়া গেছে।

স্বাগত বক্তব্যে সৈয়দ এরশাদ আহমেদ বলেন, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন, নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং নাগরিকদের জীবনমান উন্নয়নে বিনিয়োগ সহায়তা করে। তবে বিনিয়োগ আকর্ষণে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, অনুমানযোগ্য নীতিকাঠামো, সরকারি পরিষেবা ও দক্ষ মানবসম্পদ প্রয়োজন। উদ্যোক্তারা বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এ বিষয়গুলো বিবেচনা করে থাকেন।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক চেয়ারম্যান এম এ মজিদ বলেন, রাজস্ব আহরণ পদ্ধতি এবং সহায়ক বিনিয়োগ পরিবেশের ভিত্তি তৈরি করা না গেলে বিদেশি বিনিয়োগ আসবে না। দেশে বিনিয়োগের টেকসই ভিত্তি তৈরি করতে বিডা, এনবিআর, বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়া অঞ্চলকে (বেজা) একই ফ্রেমের অধীনে কাজ করতে হবে।

নীতির ধারাবাহিকতার কথা উল্লেখ করে বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। একই সঙ্গে নীতির ধারাবাহিকতা এবং টেকসই নীতি সহায়তা প্রয়োজন।

আরও পড়ুন

×