শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, ২০১৩ সালে করা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর জরিপ অনুযায়ী দেশে বেকার সংখ্যা ২৬ লাখ। তবে দেশে মোট বেকারের সংখ্যা সংক্রান্ত কোনও তথ্য শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে নেই।
 
দশম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে বৃহস্পতিবার সরকারি দলের সদস্য মুহিবুর রহমান মানিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা জানান।
 
প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকার শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি সৃষ্টি করে বেকারত্ব দূরীকরণে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।
 
চুন্নু বলেন, সরকার বাংলাদেশের বিপুল শ্রম শক্তির দক্ষতাভিত্তিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ ও কর্মমুখী শ্রম শক্তিতে পরিণত করার জন্য জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন নীতি ২০১১ অনুমোদন করেছে।
 
শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ নীতি বাস্তবায়নের জন্য সরকার দেশের সরকারি-বেসরকারি দক্ষতা প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের যথাযথ মান নিশ্চিতকরণ এবং দেশ ও বিদেশের শ্রম বাজারের চাহিদা মাফিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিশ্চিতকরণে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে ‘জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কাউন্সিল (এনএসডিসি) গঠন করেছে।
 
প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কাউন্সিলকে সহায়তার নিমিত্ত সরকারি-বেসরকারি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিত্বের সমন্বয়ে ‘এক্সিকিউটিভ কমিটি অব ন্যাশনাল স্কিলস ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিল (ইসিএনএসডিসি) গঠন করেছে।
 
তিনি বলেন, এনএসডিসি ও ইসিএনএসডিসি’র নীতি ও সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে গঠিত ‘জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কাউন্সিল সচিবালয়’ সাচিবিক সহায়তা প্রদানসহ সমন্বয়ের কাজ করছে।
 
প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশ ও বিদেশের শ্রম বাজারে বিকাশমান এবং পরিবর্তনশীল পেশাগত দক্ষতা যথাযথভাবে প্রতিফলিত করার জন্য সরকার জাতীয় কারিগরি ও বৃত্তিমূলক যোগ্যতা কাঠামো অনুমোদন করেছে। এর আওতায় দক্ষতা ভিত্তিক প্রশিক্ষণ ও মূল্যায়ন কার্যক্রম চালু করেছে।
 
মুজিবুল হক বলেন, বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকার দক্ষতা উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়নের বাস্তবমুখি কার্যক্রম, প্রকল্প প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন এবং অর্থায়ন করছে।