ওষুধকে 'বর্ষপণ্য' ঘোষণা

প্রকাশ: ০২ জানুয়ারি ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

ওষুধ ও ওষুধের কাঁচামালকে ২০১৮ সালের প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার বা 'বর্ষপণ্য' ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন তিনি। রফতানি আয় বাড়াতে প্রতিবছর কোনো পণ্যকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে 'বর্ষপণ্য' হিসেবে ঘোষণা দেয় সরকার।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, ওষুধ খাতের পণ্য রফতানি তৈরি পোশাকের মতো এগিয়ে নিতে হবে। মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ওষুধের কাঁচামাল উৎপাদনের পার্ক স্থাপন করা হচ্ছে। 


তিনি বলেন, পণ্য রফতানিতে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এ জন্য পণ্যের মানোন্নয়ন ও নতুন পণ্যের বাজার তৈরি করতে হবে। কৃষি উৎপাদন ধরে রাখার পাশাপাশি শিল্প ও রফতানি বাড়াতে হবে। খাতভিত্তিক উন্নয়নের জন্য ১০ বছর মেয়াদি প্রেক্ষিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে। বিশ্ববাজারে প্রতিযোগিতায় তাল মিলিয়ে চলতে হবে।


বর্ষপণ্য ঘোষণার ফলে ওষুধ খাতের উন্নয়নে বেশি জোর দেওয়া হবে। এ পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হবে। পাশাপাশি এ খাতে শিল্পায়নে উৎসাহিত করা হবে। 


ওষুধ শিল্প সমিতির সাবেক মহাসচিব এবং ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যালসের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মুক্তাদির বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, ওষুধ খাতের জন্য শুভসংবাদ। এ ঘোষণার মাধ্যমে এ খাত আরও এগিয়ে যাবে। ওষুধ শিল্পপার্কে কাঁচামাল উৎপাদনের জন্য কারখানা স্থাপনের কাজ হচ্ছে। এ ঘোষণায় তা আরও ত্বরান্বিত হবে। তিনি বলেন, এখন ওষুধ তৈরির কাঁচামাল আমদানি করতে হয়। শিল্পপার্ক হলে দেশেই উৎপাদন করা সম্ভব হবে। তখন উৎপাদন ব্যয় কমে আসবে। রফতানি বহু গুণ বাড়বে।

বিষয় : ওষুধকে

সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি
তারিখ সেহরি ইফতার
২০ মে '১৯ ৩:৪৪ ৬:৪০
২১ মে '১৯ ৩:৪৪ ৬:৪০
*ঢাকা ও আশেপাশের এলাকার জন্য প্রযোজ্য
সূত্র: ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ