নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে (টিআইএ)  বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজে ছিলেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের দুই কর্মকর্তা উম্মে সালমা ও নাজিয়া আফরিন চৌধুরী। তারা একটি কর্মশালায় অংশ নিতে কাঠমান্ডু যাচ্ছিলেন।

উম্মে সালমা সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের রাজস্ব ও মুদ্রানীতি অনুবিভাগে সিনিয়র সহকারি প্রধান এবং নাজিয়া আফরিন চৌধুরী আর্ন্তজাতিক অর্থনীতি অনুবিভাগে সিনিয়র সহকারি প্রধান হিসেবে কর্মরত আছেন।

পরিকল্পনা বিভাগের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের (জিইডি) সদস্য ড. শামসুল আলম বলেন, আমরা তাদের খোঁজ-খবর রাখছি। নেপাল দূতাবাস এখন পর্যন্ত কিছুই বলতে পারছে না।

তিনি বলেন, সবশেষ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাদের সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। মূলত ওই সেমিনারে আমার যোগ দেয়ার কথা ছিল। আমি যেতে পারিনি বলে ওদের পাঠিয়েছি।

সোমবার দুপুরেও উম্মে সালমা ও নাজিয়া আফরিন চৌধুরী হাসিখুশি একটি ছবি ফেসবুকে অাপলোড করেছেন।

উম্মে সালমার বড় ভাই এসএম আবুল কালাম আজাদ জানান, তিনদিনের অফিসিয়াল ট্যুরে নেপাল যাচ্ছিলেন সালমা। সোমবার সকালে তার সঙ্গে শেষ দেখা হয়েছে।

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে (টিআইএ) বিধ্বস্ত ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী উড়োজাহাজে দুই শিশুসহ অন্তত ৩৬ জন বাংলাদেশি ছিলেন। এরমধ্যে যাত্রী ছিলেন ৩১ জন।

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ৭১ জন আরোহী নিয়ে উড়োজাহাজটি ছেড়ে যায়। নেপালে পৌঁছানোর পর এটি বিধ্বস্ত হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজের ৫০ জন আরোহী মারা গেছেন বলে নেপাল পুলিশের মুখপাত্র মনোজ নেউপানের বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।