ঈদবাজারে ৫ কোটি জাল টাকা ছড়ানোর টার্গেট!

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

ঈদের সময় আর্থিক লেনদেন বেড়ে যায়। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে প্রায় পাঁচ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল একটি চক্র। 

এরই মধ্যে তারা এক কোটি জাল টাকা ছেপে মজুদও করেছিল। তবে তা বাজারে ছড়ানোর আগেই জব্দ করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গ্রেফতার করা হয়েছে চক্রের ১০ সদস্যকে। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ধারাবাহিকভাবে চলে এ অভিযান।

অভিযানে গ্রেফতার হয়েছে রফিক, জাকির, হানিফ, রাজন শিকদার ওরফে রাজা ওরফে রাজু, খোকন ওরফে শাওন, রিপন, মনির, সোহরাব, জসিম ও লাবণী। 

তাদের কাছ থেকে জব্দ করা হয়েছে জাল টাকা তৈরির প্রচুর সরঞ্জাম। এর মধ্যে রয়েছে- একটি ল্যাপটপ, দুটি কালার প্রিন্টার, এক পৃষ্ঠায় জাল টাকা ছাপানো ১৬টি পাতা, ১০টি স্ক্রিন বোর্ড (এর সাহায্যে জাল নোটে জলছাপ দেওয়া হয়), জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত কালির ২৭টি সাদা কৌটা, কালির আটটি লাল কৌটা, দুটি সাদা প্লাস্টিকের কৌটা, ৩০০টি কালার কার্টিজ ও জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত সুতা তৈরির তিনটি রোল।

শুক্রবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেন ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য। 

তিনি বলেন, জাল টাকা তৈরি চক্রের প্রধান রফিক প্রথম জীবনে নোয়াখালীর ছগির মাস্টার নামে এক ব্যক্তির সহযোগী হিসেবে এই কাজে জড়ায়। একপর্যায়ে সে নিজেই কিছু সরঞ্জাম কিনে রাজধানীর পূর্ব জুরাইনের বৌবাজার এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে জাল টাকা তৈরির কার্যক্রম শুরু করে। এরপর সে দীর্ঘদিন ধরে তার অন্যতম সহযোগী রাজন, লাবণীসহ অন্যদের নিয়ে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে জাল টাকার ব্যবসা করে আসছিল। জাকির জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহূত বিশেষ ধরনের কাগজে জলছাপ ও নকল নিরাপত্তা সুতা বসানোর কাজ করত।

দেবদাস ভট্টাচার্য বলেন, এক লাখ টাকার জাল নোট তৈরিতে খরচ হয় প্রায় ১০ হাজার টাকা। তবে পাইকারি বিক্রেতার কাছে তা ১৪/১৫ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়। পাইকারি বিক্রেতা খুচরা বিক্রেতার কাছে ২০-২৫ হাজার টাকা এবং খুচরা বিক্রেতা অন্য বিক্রেতার কাছে ৪০-৫০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। সেই বিক্রেতা সমান দামে বা এক লাখ টাকা হিসেবে বাজারজাত করে। তারা মাঠপর্যায়ে বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনে বিক্রেতাকে এসব জাল নোট দেওয়ার মাধ্যমে টাকা বাজারে ছড়িয়ে দেয়।

ডিবি সূত্র জানায়, চক্রটির সদস্যদের মধ্যে লাবণী ছাড়া সবাই একাধিকবার গ্রেফতার হয়েছে। তবে জামিনে বেরিয়ে তারা ফের একই কারবারে জড়িয়ে পড়ে। রফিক ও জাকির মূলত চক্রটির প্রধান নিয়ন্ত্রক। জাকির জাল টাকা তৈরির কারিগরি অংশটি দেখাশোনা করে। লাবণী ও রাজু স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে জুরাইনের বৌবাজারে বাসা ভাড়া নেওয়ার পর সেখানে জাল টাকার কারবার শুরু করে। জাল টাকা তৈরিতে ব্যবহৃত নিরাপত্তা সুতা চক্রটি কোথায় থেকে সংগ্রহ করে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। গ্রেফতারকৃতদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে প্রয়োজনীয় তথ্য বেরিয়ে আসবে বলে আশা করছেন তদন্ত সংশ্লিষ্টরা।

আরও পড়ুন

সুন্দরবন এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত, খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

সুন্দরবন এক্সপ্রেস লাইনচ্যুত, খুলনার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি ...

শতভাগ স্বচ্ছতায় সারা দেশে শিক্ষক নিয়োগ হবে: শিক্ষামন্ত্রী

শতভাগ স্বচ্ছতায় সারা দেশে শিক্ষক নিয়োগ হবে: শিক্ষামন্ত্রী

শতভাগ স্বচ্ছতার মধ্য দিয়ে সারা দেশে শিক্ষক নিয়োগ করা হয়ে ...

বিপিএল দিয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রস্তুতি হবে না: রোডস

বিপিএল দিয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রস্তুতি হবে না: রোডস

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মাথার ওপর নিউজিল্যান্ডের কঠিন পরিক্ষা ঝুলছে। বিপিএলে ...

খাবার কিনতে রেস্তোরাঁর লাইনে বিল গেটস

খাবার কিনতে রেস্তোরাঁর লাইনে বিল গেটস

বিশ্বের অন্যতম ধনী ব্যক্তি মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। তারপরও তার ...

'বিজয় সমাবেশ' ঘিরে ডিএমপির ট্রাফিক নির্দেশনা

'বিজয় সমাবেশ' ঘিরে ডিএমপির ট্রাফিক নির্দেশনা

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শনিবার ‘বিজয় সমাবেশ’ ঘিরে বেশ কিছু ট্রাফিক ...

মমতাকে চিঠি দিলেন রাহুল

মমতাকে চিঠি দিলেন রাহুল

ভারতের মাটিতে বিজেপি বিরোধী ফেডারেল ফ্রন্ট গঠনের লক্ষ্যে শনিবার কলকাতার ...

ওয়ার্নারদের উড়িয়ে দিলেন সাকিব-রাসেল

ওয়ার্নারদের উড়িয়ে দিলেন সাকিব-রাসেল

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে সেরা ছন্দে আছে সাকিবের ঢাকা ডায়নামাইটস। তরুণ ...

গৃহকর্তা ও দারোয়ানের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগ

গৃহকর্তা ও দারোয়ানের বিরুদ্ধে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চট্টগ্রামে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে একটি ভবনের দারোয়ানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ...