হলি আর্টিজান মামলা: সাক্ষ্য দিলেন ৫ পুলিশ কর্মকর্তা

প্রকাশ: ২৫ জুন ২০১৯     আপডেট: ২৫ জুন ২০১৯      

আদালত প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় জঙ্গি হামলার মামলায় পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তার সাক্ষ্য নিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। মঙ্গলবার ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান এ সাক্ষ্য নেন। আগামী ২ জুলাই পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন নির্ধারণ করেন বিচারক।

সাক্ষ্যদাতা পুলিশ কর্মকর্তারা হলেন- গুলশান জোনের সাবেক অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আ. আহাদ, গুলশান ডিপ্লোম্যাটিক সিকিউরিটি জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার জসিম উদ্দিন, ঢাকা ডিপ্লোম্যাটিক সিকিউরিটি জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. ওবায়দুল হক, বনানী থানার উপপরিদর্শক মাহাবুব আলম ও সহকারী উপপরিদর্শক মো. বিল্লাল ভুইয়া। এ নিয়ে এ মামলার ২১১ জন সাক্ষীর ৫৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হলো।

সাক্ষ্য গ্রহণের সময় এদিন আসামি মামুনুর রশীদ ওরফে রিপন, শফিকুল ইসলাম ওরফে খালেদ, হামলার মূল সমন্বয়ক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক তামিম চৌধুরীর সহযোগী আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে আবু জাররা, ঘটনায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহকারী নব্য জেএমবি নেতা হাদিসুর রহমান সাগর, নব্য জেএমবির অস্ত্র ও বিস্ফোরক শাখার প্রধান মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, জঙ্গি রাকিবুল হাসান রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব ওরফে রাজীব গান্ধী ও হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী আব্দুস সবুর খান (হাসান) ওরফে সোহেল মাহফুজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তাদের কারাগার থেকে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

গত বছরের ২৬ নভেম্বর মামলার আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন ও বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। পরে পলাতক আসামি মো. শরিফুল ইসলাম ও মামুনুর রশিদের সম্পত্তি জব্দ এবং তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।