সূর্যের শহরে বৃষ্টিময় স্বাগত

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

সামিউল আলম রাজিব যেগেদ (হাঙ্গেরি) থেকে

রোববার হাঙ্গেরিতে আন্তর্জাতিক জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াড উদ্বোধনের পর বাংলাদেশের চার প্রতিযোগী- সমকাল

বাসা থেকে বের হয়েই বিশাল ট্রাফিক জ্যাম। আপাতত গন্তব্য বিমানবন্দর। মধ্যরাতের ফ্লাইটে দুবাই হয়ে হাঙ্গেরি। সঙ্গে আরেকজন জুরি এবং দলনেতা শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. শহীদুর রশীদ ভূঁঁঁইয়া আর আমাদের চার প্রতিযোগী আহনাফ, রাফসান, মাধব ও অদ্বিতীয়। আমাদের যাত্রা পূর্ব থেকে পশ্চিমদিকে হওয়াতে ১৪ জুলাই তারিখটা আমাদের জন্য ২৮ ঘণ্টার হয়ে যায়, যার অধিকাংশ সময় আমাদের বিমান আর বাসে থাকতে হয়েছে। বাসে যখনই সূর্যের শহর যেগেদে প্রবেশ করলাম, আমাদের স্বাগত জানানোর জন্যই কিনা ঝুম বৃষ্টি নামল। খুব সাজানো গোছানো শহর যেগেদ। বাস থেকে আমাদের নামিয়ে দেওয়া হলো জুরি হোটেলে। হোটেলে ব্যাগ রেখে আমরা চলে গেলাম পাশেরই রাদনোটি-মিলকস গ্রামার স্কুলে। সেখানেই আমাদের রেজিস্ট্রেশন হল। এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে শুরু হয় ওপেনিং ডিনার। সব দেশের জুরি ও প্রতিযোগীরা একত্রিত হলাম প্রথম  বারের মতো। আমাদের প্রতিযোগীরাও লাল-সবুজের বেশে হাজির ছিল অনুষ্ঠানে।

ডিনার শেষে হেঁটেই গেলাম পাশের যেগেদের ন্যাশনাল থিয়েটারে। হাজার বছরের পুরনো শহর যেগেদের অন্যতম আকর্ষণীয় স্থাপনা হলো এই ন্যাশনাল থিয়েটার। নির্ধারিত আসন গ্রহণ করার পর শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান। সূচনা হাঙ্গেরিয়ান লোকজ নৃত্যের মাধ্যমে। একে একে স্বাগত বক্তব্য দেন হাঙ্গেরির সরকারি প্রতিনিধিরা। এর পর আন্তর্জাতিক বায়োলজি অলিম্পিয়াড ২০১৯-এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন আন্তর্জাতিক বায়োলজি অলিম্পিয়াডের সভাপতি অধ্যাপক মাতসুদা। উদ্বোধনের পর শুরু হয় সব দেশের প্রতিযোগীদের মার্চপাস্ট। সত্যি বলতে, লাল-সবুজের পতাকাবাহী আমাদের দলটি যখন সবার সামনে দিয়ে যায়, তা ভিন্ন এক অনুভূতি জাগায়, যা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশের প্রতিযোগীদের সঙ্গে আমাদের শেষ বারের মতো দেখা হয়। আজ (সোমবার) থেকে শুরু করে পরীক্ষা শেষ হওয়া পর্যন্ত তাদের সঙ্গে আমাদের আর দেখা-সাক্ষাৎ হবে না। এর মধ্যে আগামীকাল আমাদের জুরিদের ব্যবহারিক পরীক্ষার প্রশ্ন নিয়ে বসতে হবে, প্রতিটা প্রশ্ন খুঁটিয়ে দেখতে হবে, তাদের মান নিয়ে আলোচনা করতে হবে অন্য দেশের জুরিদের সঙ্গে। অন্যদিকে আমাদের প্রতিযোগীদেরকে ল্যাবরেটরিতে কীভাবে সাবধানতা অবলম্বন করে কাজ করতে হয় তার প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এ কাজের মধ্য দিয়েই শুরু ৩০তম আন্তর্জাতিক বায়োলজি অলিম্পিয়াডের মূল পর্ব। তিন দিনের মূল প্রতিযোগিতার প্রথমে অনুষ্ঠিত হবে ব্যবহারিক প্রতিযোগিতা; তারপর একদিন বিরতি দিয়ে তত্ত্বীয় প্রতিযোগিতা।

বিষয় : বায়োলজি অলিম্পিয়াড আন্তর্জাতিক