বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্যকে অপসারণে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

প্রকাশ: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

২৪ ঘণ্টার মধ্যে গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. খোন্দকার মো. নাসিরউদ্দীনের অপসারণ দাবি জানিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে অপসারণ না করা হলে মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি প্রদানের ঘোষণাও দেওয়া হয়।

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ায় জিনিয়া নামের ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে সাময়িক বহিস্কার করার প্রতিবাদে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এমন দাবি ও ঘোষণা দেয় সংগঠনটি। 

সোমবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রী ফেসবুকে 'বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কী?' লেখা সংবলিত স্ট্যাটাস দেওয়ায় গত ১১ সেপ্টেম্বর তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে সাময়িক বহিস্কার করা হয়। তিনি একটি দৈনিক পত্রিকার ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি।

সংগঠনটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. আ ক ম জামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রায়হানুল ইসলাম আবির, সাধারণ সম্পাদক মাহাদী আল মুহতাসিম নিবিড়, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক আল মামুনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

মানববন্ধনে অধ্যাপক জামাল উদ্দীন বলেন, জাতির পিতা যেখানে শুয়ে আছেন, সেই স্থানে ভিসি নাসিরউদ্দীন স্বৈরাচারী শাসন প্রতিষ্ঠা করেছেন। শুধু মত প্রকাশের জন্য তিনি এক ছাত্রীকে বহিস্কার করেছেন। এর আগে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা নিয়ে লেখায় ৫ শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করেছেন ওই ভিসি।

তিনি বলেন, নাসিরউদ্দীনের বিরুদ্ধে আরও অনেক অভিযোগ রয়েছে। রায়হানুল ইসলাম আবির বলেন, অবিলম্বে জিনিয়ার বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি সারাদেশের সাংবাদিকদের সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন গড়ে তুলবে।