চুনোপুঁটি-রাঘববোয়াল বুঝি না, সারাদেশে অভিযান চলবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশ: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল- ফাইল ছবি

চাঁদাবাজি, দুর্নীতি ও মাদকবিরোধী অভিযান সারাদেশেই চলবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, চুনোপুঁটি-রাঘববোয়াল বলতে কিছু বুঝি না। গডফাদার-গ্র্যান্ডফাদার যারাই অপরাধ করবে, তাদেরই শাস্তি পেতে হবে। অপরাধে জড়িত হওয়ায় আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যকেও ছাড় দেওয়া হয়নি। 

সোমবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অবৈধ ব্যবসা ও টেন্ডারবাজির মতো অপকর্মের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। যেখান থেকেই তথ্য আসছে সে তথ্যের ভিত্তিতে গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে। অপরাধী যেই হোক আইনের আওতায় আনা হবে। অপরাধীদের বিদেশ যাওয়া ঠেকাতে বিমানবন্দরগুলোতে সতর্কতা জারির কোনো সম্ভাবনা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, বিমানবন্দরগুলোতে সবসময় অপরাধীদের তালিকা থাকে যেন তারা পালিয়ে যেতে না পারে। এ জন্য সেখানে একটি বিশেষ টিম কাজ করে। দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থেকেও কেন এতদিন এসব অবৈধ ব্যবসা নজরে আসেনি জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যখনই কোনো অপরাধ নজরে আসে তখনই ধরছি। শুধু দু-একদিনের মধ্যে হয়তো একজন-দু'জন উল্লেখযোগ্য আপনাদের চোখের সামনে আসছে। এর আগেও অপরাধী হিসেবে যার নাম এসেছে কিংবা অবৈধ কিছু করার চেষ্টা করেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

জনপ্রিয়তা বাড়াতে সরকার এ পদক্ষেপ নিয়েছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বললেন, জনপ্রিয়তার জন্য নয়, সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন। সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হলে এসব অবৈধ ব্যবসা বা যারা অবৈধভাবে অন্যায় কিছু করতে চায়, তাদের দমন করতে হবে।

চট্টগ্রামের ক্রীড়া ক্লাবগুলোতে অভিযানে রোববার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানান জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী। তিনি চট্টগ্রাম আবাহনী লিমিটেডের মহাসচিবও। 

হুইপের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অবৈধ ব্যবসা ছাড়া বৈধ কোনো প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালাইনি। ক্যাসিনো, জুয়া খেলা অবৈধ। যুবলীগ নেতা সম্রাট কোথায় আছেন- এ প্রশ্নে তিনি বলেন, কে কোথায় আছেন সেটা বড় কথা নয়। সবচেয়ে বড় কথা হলো কে কতখানি অপরাধ করেছে। যারাই অপরাধ করেছে চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসছি।