‘নুসরাত হত্যাকাণ্ডের বিচার আইনের শাসনের ইতিহাসে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত’

প্রকাশ: ২৪ অক্টোবর ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, নুসরাত হত্যাকাণ্ডের বিচারের মাধ্যমে বাংলাদেশে আইনের শাসনের ইতিহাসে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডে দ্রুততার সঙ্গে তদন্ত ও বিচার শেষ হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়ায় প্রত্যাশিত দণ্ড আরোপ করা হয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচারে আইনজীবীগণ গৌরবময় ভূমিকা পালন করেছেন। এভাবে সভ্য সমাজ বিনির্মাণে আইনজীবীরা বিশাল ভূমিকা পালন করতে পারেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর সুপ্রীম কোর্ট বার মিলনায়তনে খুলনা বিভাগীয় আইনজীবী সমিতি, ঢাকার কার্যনির্বাহী কমিটি ২০১৯-২০২০ এর অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গণপূর্ত মন্ত্রী বলেন, নৈতিকতা ও মূল্যবোধের চরম অবক্ষয়ের জায়গা থেকে আমরা বেরিয়ে এসেছি। এদেশে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার, নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের বিচার, বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার, বিডিআর হত্যাকাণ্ডের বিচার আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে হয়েছে। এ সরকারের আমলেই প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিরা দুর্নীতির দায়ে দল থেকে বহিষ্কৃত হচ্ছেন, গ্রেফতার হচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক্ষেত্রে কে প্রভাশালী, কে দলের লোক, কে আত্মীয় এসব বিবেচনা করছেন না। ক্ষমতাসীন দলের হলেই সবকিছুর উর্ধ্বে থাকব, এটা হতে পারে না। বাংলাদেশ উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আরো এগিয়ে যাবার কথা ছিলো। দুর্নীতি ও নৈতিকতা বিবর্জিত কর্মকাণ্ড আমাদের পিছিয়ে রেখেছে।

আইনজীবীদের উদ্দেশে শ ম রেজাউল করিম বলেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আপনারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। আইন অঙ্গণকে নৈতিকতার অবস্থানে ফিরিয়ে আনা দরকার। এ অঙ্গণে পরস্পরের মধ্যে সৌহার্দ্য, শ্রদ্ধা ও সম্প্রীতি থাকতে হবে। তা না হলে এখানে শূন্যতা সৃষ্টি হতে পারে। শূন্যতার জায়গা আমাদের ধারণ করতে হবে। আইন অঙ্গণে সকলের মধ্যে সম্পর্কের যে গৌরব, তা পুনুরুদ্ধার করা দরকার। এ জন্য মৌলিক সুকুমার বৃত্তির চর্চা দরকার, আত্মসমালোচনা আর আত্মশুদ্ধি দরকার।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী আরও বলেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গণতন্ত্রকে সুসংহত করা যায়। আইনের শাসন না থাকলে গণতন্ত্র অর্থহীন হয়ে যায়। গণতন্ত্র অর্থহীন হয়ে গেলে সমাজ ব্যবস্থা বিপন্ন হয়। বিপন্ন সমাজ ব্যবস্থায় আমরা কেউ নিরাপদ নই। সকলে মিলে চেষ্টা করলে একটি স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতাপূর্ণ জনবান্ধব রাষ্ট্রব্যবস্থা গড়ে তোলা কঠিন নয়।

খুলনা বিভাগীয় আইনজীবী সমিতি, ঢাকার সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন সুপ্রীম কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট ও খুলনা বিভাগীয় আইনজীবী সমিতি, ঢাকার প্রধান উপদেষ্টা ব্যারিস্টার এম আমির-উল-ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতি শশাঙ্ক শেখর সরকার, সুপ্রীম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এম আমিন উদ্দিন প্রমুখ।