শিবির সন্দেহে চবি শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ

প্রকাশ: ১১ ডিসেম্বর ২০১৯   

চবি সংবাদদাতা

শিবির সন্দেহে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক শিক্ষার্থীকে শাখা ছাত্রলীগের বগি ভিত্তিক সংগঠন সিক্সটি নাইনের অনুসারীরা পিটুনি দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ অনুষদের ব্যবস্থাপনা বিভাগের এমবিএর মৌখিক পরীক্ষা চলাকালে বিভাগটির ১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ইমরানের ওপর এই হামলা হয়।

ছাত্রলীগের পিটুনিার পর প্রক্টরিয়াল বডি তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশে সোপর্দ করে। এ সময় মালেক নামে তার এক বন্ধুকেও পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, বিষয়টি জানতে পেরে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে পুলিশে সোপর্দ করি। তার বিরুদ্ধে কোনও ধরনের অভিযোগ থাকলে পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখবে।

এ ব্যাপারে কথা বলা হলে হাটহাজারী মডেল থানার ওসি মো. মাসুদ থানার এসআই তৌহিদের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। কিন্তু একাধিকবার ফোন দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

একাধিক শিক্ষার্থী জানান, এমবিএ পরীক্ষার ভাইভা দিয়ে বের হলে কয়েকজন ইমরানকে টেনে হেঁচড়ে নিয়ে যান শাখা ছাত্রলীগের বগি ভিত্তিক সংগঠন সিক্সটি নাইনের কর্মীরা। পরবর্তীতে ফেসবুকে বিভিন্ন উসকানিমূলক পোস্ট দেয়ার অভিযোগে শিবির আখ্যা দিয়ে মারধর শুরু করলে শিক্ষকরা তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। এসময় কিছু সময় ভাইভা পরীক্ষা স্থগিত ছিল। পরে বিভাগের শিক্ষকরা বিষয়টি প্রক্টরিয়াল বডিকে জানালে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রক্টর অফিসে নিয়ে যান।

সিক্সটি নাইনের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, ‘কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ থাকলে সেটা আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনী দেখবে। ওটা ছাত্রলীগের দায়িত্ব না। বিষয়টি শুনেছি এখনও জানি না কারা মারধর করেছে।’

ব্যবস্থাপনা বিভাগের সভাপতি প্রফেসর সাহিদুর রহমান বলেন, আমি একটি মিটিংয়ে ছিলাম। সহকর্মীদের মাধ্যমে ঘটনাটি জানতে পারি। পরে প্রক্টরিয়াল বডিকে বিষয়টি জানাই। এতে ভাইভাতে কিছুটা প্রভাব পড়ে।