মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের পরিবারের পাশে থাকবে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন। শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মৃতি চিরন্তন চত্বরের স্মৃতিফলকে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, বুদ্ধিজীবী পরিবারের সদস্যদের স্মৃতিচারণ এবং প্রদীপ প্রজ্বালন কর্মসূচিতে এ কথা জানানো হয়।

ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাইয়ের সভাপতি এ. কে. আজাদের সভাপতিত্বে এ কর্মসূচিতে মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার, সিনিয়র সহসভাপতি মোল্লা মো. আবু কাউছার, সহসভাপতি আনোয়ারুল আলম পারভেজ, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজালুর রহমান, প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন, সদস্য মনিরা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এতে শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের পক্ষ থেকে ছিলেন শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নুজহাত চৌধুরী, শহীদ সাংবাদিক নিজামুদ্দিন আহমেদের ছেলে সাফকাত নিজাম বাপ্পী, শহীদ নাট্যকার মুনীর চৌধুরীর ছেলে আসিফ মুনীর, শহীদ লেখক আনোয়ার পাশার ছেলে রবিউল আফতাব।

এতে এ. কে. আজাদ বলেন, স্বাধীনতা অর্জনের ৪৮ বছর পেরুলেও আমরা মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের যথাযথ স্বীকৃতি দিতে পারিনি। যদিও তাদের রক্তের ওপরই আমরা আজ এ স্বাধীন রাষ্ট্রে দাঁড়িয়ে আছি। তবে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন এরই মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের স্বীকৃতি দেওয়ার পাশাপাশি তাদের সহযোগিতায় বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম শুরু করেছে। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের পরিবারের পাশে ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন সব সময় থাকবে।

তিনি বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ ছাত্র-শিক্ষকদের ইতিহাস লিপিবদ্ধ করে রাখার উদ্যোগ নেবে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন।

ঢাবির কর্মসূচি: শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। এর মধ্যে ছিল- উপাচার্য ভবনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন, শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জমায়েত, বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ-সংলগ্ন কবরস্থান, জগন্নাথ হল স্মৃতিসৌধ ও বিভিন্ন আবাসিক এলাকার স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে আলোচনা সভা প্রভৃতি। এ ছাড়া, বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদসহ বিভিন্ন হল মসজিদ ও উপাসনালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও প্রার্থনা করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে আলোচনা সভা হয়। এতে উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, শহীদ গিয়াস উদ্দিন আহমেদের বোন অধ্যাপক সাজেদা বানু, ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর, মুক্তিযোদ্ধা প্রাতিষ্ঠানিক ইউনিট কমান্ডের সদস্য অধ্যাপক আবু জাফর মো. ছালেহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মো. আমিরুল ইসলামসহ শহীদ পরিবার কল্যাণ সমিতি, তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতি, কারিগরি কর্মচারী সমিতি এবং চতুর্থ শ্রেণি কর্মচারী ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন। রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান সভা সঞ্চালন করেন।