দেশে হিজড়া ভোটার সংখ্যা ৩৫৩ জন। সোমবার প্রকাশিত খসড়া ভোটার তালিকা থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। এবার প্রথমবারের মতো হিজড়া ভোটারের তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশ করা হয়েছে। এর আগে সরকার বেশ কয়েক বছর আগে হিড়জাদের তৃতীয় লিঙ্গের স্বীকৃতি দিলেও ভোটার তালিকায় তারা তৃতীয় লিঙ্গ বা হিজড়া হিসেবে অন্তর্ভুক্তির সুযোগ পায়নি। নির্বাচন কমিশনের ভোটার তালিকা বিধিমালায় জটিলতার কারণেই হিজড়াদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা সম্ভব হয়নি। পরে বিধিমালা সংশোধনের পর এবারই প্রথম তাদের তথ্য সংগ্রহ ও প্রকাশ করা হলো।

ভোটার তালিকা সংশোধন আইন উঠল সংসদে : এদিকে, সোমবার সংসদের বৈঠকে ভোটার তালিকা সংশোধন আইন উত্থাপন করা হয়েছে। আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক বিলটি উত্থাপন করেন। এর আগে বিকেল সোয়া ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। 'ভোটার তালিকা (সংশোধন) বিল, ২০২০' উত্থাপনের পর পরীক্ষাপূর্বক রিপোর্ট দেওয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণসংবলিত বিবৃতিতে মন্ত্রী বলেন, বিদ্যমান আইনে প্রতিবছর ২ থেকে ৩১ জানুয়ারির মধ্যে হালনাগাদ করার বিধান রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করে ডাটাবেসে অন্তর্ভুক্ত করে সারাদেশে সিডি আকারে প্রস্তুত করা অনেক কষ্টসাধ্য। এ জন্য সময় বাড়ানো প্রয়োজন। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে ২ মার্চ 'জাতীয় ভোটার দিবস' ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত বিলে ভোটার দিবসের সঙ্গে মিল রেখে ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় '২ জানুয়ারি থেকে ২ মার্চ' করা হয়েছে। বিলটি পাস হলে হালনাগাদের সময় ৩০ দিন থেকে বেড়ে ৬০ দিন হবে।

বিষয় : হিজড়া ভোটার

মন্তব্য করুন