মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কার' প্রবর্তন করেছে শিল্প মন্ত্রণালয়। বড়, মাঝারি, ক্ষুদ্র, কুটির, মাইক্রো, হস্ত ও কারু এবং হাইটেক শিল্প- এই ৭ ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হবে। প্রত্যেক ক্যাটাগরিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় অর্থাৎ, তিনটি করে মোট ২১টি পুরস্কার দেবে শিল্প মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে শিল্প মন্ত্রণালয়ের নেওয়া কর্মসূচি তুলে ধরতে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়। এ সময় গত এক বছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অর্জনও তুলে ধরেন শিল্পমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প পুরস্কারের প্রত্যেক ক্যাটাগরির প্রথম পুরস্কার হিসেবে তিন লাখ টাকা ও ২৫ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট দেওয়া হবে। দ্বিতীয় পুরস্কার দুই লাখ টাকা ও ২০ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট। তৃতীয় পুরস্কার এক লাখ নগদ টাকা ও ১৫ গ্রাম স্বর্ণখচিত ক্রেস্ট। ইতোমধ্যে এ পুরস্কারের আবেদন আহ্বান করা হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ক্যাটাগরিভিত্তিক আবেদনপত্র ডাউনলোড করা যাবে।

গত এক বছরের অর্জন তুলে ধরতে গিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান বেড়েছে। বেড়েছে এডিপি বাস্তবায়ন। চামড়া শিল্পনগরীতে চারটি মডিউল চালু এবং রাজশাহী ও চট্টগ্রামে নতুন চামড়া শিল্পনগরী স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। নতুন সার কারখানা স্থাপন, বাফার গুদাম নির্মাণ ও বন্ধ কারখানা চালু হয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, শিল্প সচিব আবদুল হালিমসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, শিল্প খাত নিয়ে জাতির পিতার উন্নয়ন পরিকল্পনা ও উদ্যোগ জনগণের কাছে তুলে ধরতে এ বছর 'বঙ্গবন্ধুর শিল্পভাবনা' শীর্ষক একটি জাতীয় সেমিনার করবে শিল্প মন্ত্রণালয়। রাজধানীর মতিঝিলে শিল্প ভবনের নিচতলার লবিতে অথবা সুবিধাজনক জায়গায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করা হবে। চিনি ও খাদ্য শিল্প করপোরেশনের প্রধান কার্যালয় ও অধীনস্থ ১৬টি মিলের প্রত্যেকটিতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করা হবে। বিসিকের নতুন ভবন ও বিটাক প্রাঙ্গণে ম্যুরাল স্থাপন করা হবে।