'বিএনপির জন্মই অবৈধ ক্ষমতা দখলকারীর হাতে'

প্রকাশ: ৩০ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ৩০ জানুয়ারি ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা বলেছেন, পেছনের দরজা দিয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীর হাতে জন্ম বিএনপির। এ দলটির বর্তমান প্রধান দুর্নীতির দায়ে কারাগারে, অন্যজন লন্ডনে পলাতক। এমন একটি দলের প্রতিনিধিত্ব করা কিছু এমপি মিথ্যাচার ও বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়ে সংসদকে উত্তপ্ত করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু তাদের কোনো ষড়যন্ত্রই আর এ দেশে বাস্তবায়িত হবে না, দেশের জনগণ তাদের গ্রহণ করবে না।

বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সংসদ সদস্যরা এসব কথা বলেন। প্রথমে ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এবং পরে প্যানেল সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফের সভাপতিত্বে এদিন আলোচনায় অংশ নেন সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরিফ আহমেদ, সরকারি দলের সংসদ সদস্য আবদুস সালাম মুর্শেদী, মহিবুর রহমান, ছলিম উদ্দীন তরফদার, সৈয়দা রাশিদা বেগম এবং জাতীয় পার্টির শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ।

বিএনপি-জামায়াত জোটের সমালোচনা করে শরিফ আহমেদ বলেন, মিথ্যা তথ্য ও উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিএনপির এমপিরা সংসদকে উত্তপ্ত ও উত্তেজিত করতে চাচ্ছেন। ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে হাঁ-না ভোটের মাধ্যমে বিএনপির মতো দল জন্ম নিয়েছিল। দলটির প্রধান জেনারেল জিয়াউর রহমান বাংলার মাটিতে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার ঠেকাতে ইনডেমনিটিকে আইনে পরিণত করেছিলেন।

তিনি বলেন, বিএনপির এমপিরা সংসদে নানা কথা বলেন, আমাদের ছবক দেওয়ার চেষ্টা করেন। তারা কোন দলের প্রতিনিধি? এ দলের একজন প্রধান এতিমের টাকা আত্মসাতের দায়ে কারাগারে, অন্যজন দুর্নীতির কারণে লন্ডনে পলাতক। সেই দলটির প্রতিনিধিদের মুখে এসব কথা মানায় না।

আবদুস সালাম মুর্শেদী বলেন, মুজিববর্ষে নতুন শপথ নিয়ে পুরো জাতি উদ্দীপিত হবে। নতুন প্রত্যয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন-অগ্রগতির ধারায় শামিল হবে। নানা ষড়যন্ত্র এবং হত্যার হুমকিকে তুচ্ছ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের মহাসড়ক দিয়ে বাংলাদেশকে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।

শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু সুশাসনের পূর্বশর্ত হচ্ছে আইনের শাসন। দেশে খুন, ধর্ষণ ও মাদকের আগ্রাসন দিন দিন বেড়েই চলেছে। যুবসমাজ মাদকের ছোবলে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। পুঁজিবাজারের অব্যাহত ধসে বিনিয়োগকারীরা পথে বসেছেন। ব্যাংকগুলোতে এখন তারল্য সংকট প্রকট আকার ধারণ করেছে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণহীন, ভেজাল খাদ্যে ভোক্তারা দিশেহারা। রমজান মাস আসন্ন হলেও পেঁয়াজের ঝাঁজ এখনও কমেনি। এসব দিকে বিশেষ নজর দিয়ে সরকারকে অব্যাহত অভিযান চালাতে হবে।