২ সাক্ষীকে ভয় দেখানোর অভিযোগে মিন্নির জামিন বাতিলের আবেদন

প্রকাশ: ০৮ জানুয়ারি ২০২০   

বরগুনা প্রতিনিধি

আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি- ফাইল ছবি

আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি- ফাইল ছবি

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার আসামি নিহতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির জামিন বাতিলের আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

বুধবার বরগুনা জেলা দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ভূবন চন্দ্র হালদার এই আবেদন করেন।

হাইকোর্টের আদেশে জামিনে রয়েছেন মামলার আসামি মিন্নি। তার জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন প্রসঙ্গে পিপি ভূবন চন্দ্র হালদার জানান, ৪ জানুয়ারি বিকেল ৪টার দিকে তিনটি মোটরসাইকেলে মামলার সাক্ষী জাকারিয়া ও হারুনের বাড়ির কাছে সদর উপজেলার লবণগোলা গ্রামে মিন্নিসহ পাঁচজন গিয়ে মিন্নির বিরুদ্ধে সাক্ষী না দেওয়ার জন্য সাক্ষীদের ভয়ভীতি দেখান।

তিনি বলেন,  'এ কারণে মিন্নি বাইরে থাকলে মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহিত হতে পারে বলেই তার জামিন বাতিল চেয়ে আবেদন করা হয়েছে। আদালত আবেদন গ্রহণ করেছেন। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার আদেশ হবে।’

এ বিষয়ে মিন্নির আইনজীবী মাহবুবুল বারি আসলাম জানান, হাইকোর্ট থেকে মিন্নি জামিনে আসার পর থেকে আদালতে আসা ছাড়া বাড়ির বাইরে যান না। হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকায় মিডিয়ার সঙ্গেও কথা বলেন না। তার অভিযোগ, মিন্নিকে হয়রানি করার জন্যই তার জামিন বাতিল চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করেছে।

এদিকে রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে বুধবার চার্জ গঠন করেছেন আদালত। এর মাধ্যমে তাদের আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।

অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা হচ্ছে- রাশেদুল হাসান রিশান, রাকিবুল হাসান রিফাত, মো. নাজমুল হাসান, রাকিবুল হাসান নিয়ামত, মো. সাইয়েদ মারুফ বিল্লাহ, আবু আবদুল্লাহ রায়হান, মো. অলিউল্লাহ, জয় চন্দ্র সরকার, মো. নাইম, মো. তানভীর হোসেন, মারুফ মল্লিক, প্রিন্স মোল্লা, রাতুল সিকদার ও আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ।

মামলার পূর্ব নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী, যশোর শিশু-কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকা অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামিকে বুধবার সকালে বরগুনার শিশু আদালতে হাজির করা হয়। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালতের বিচারক হাফিজুর রহমান আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে ১৩ জানুয়ারি পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ এবং সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেন।

বরগুনার নারী ও শিশু আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল জানান, রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ কিশোর আসামির মধ্যে ১৩ জনের বিরুদ্ধে ৩০২ ও ৩৪ ধারায় এবং আরিয়ান শ্রাবণ নামে অন্য এক আসামির বিরুদ্ধে ৩০২, ১২০-এর বি ও ২১২ ধারায় অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। ১৩ জানুয়ারি থেকে এদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হবে।

এদিকে, অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামি আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ ও মারুফ মল্লিককে জামিন দিয়েছেন বরগুনার শিশু আদালত। আরিয়ান হোসেন শ্রাবণের আইনজীবী গোলাম মোস্তফা কাদের জানান, সকালে (বুধবার) শিশু আদালতে আরিয়ান শ্রাবণ ও মারুফ মল্লিকের জামিন আবেদন করা হলে আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান শুনানি শেষে আদেশের অপেক্ষায় রাখেন। বিকেলে তাদের জামিন মঞ্জুর আদেশ দেন বিচারক।

এর আগে গত ১ জানুয়ারি রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। এছাড়া রাফিউল ইসলাম রাব্বি ও কামরুল ইসলাম সাইমুনের বিরুদ্ধে হত্যার ষড়যন্ত্র এবং আসামিদের পালাতে সহায়তা করার অভিযোগে ২১২ এবং ১২০ (বি) ১ ধারায় অভিযোগ গঠন করা হয়। অপর আসামি সাগরের বিরুদ্ধে হত্যার ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে অভিযোগ গঠন করা হয়।

এ মামলায় নিহতের বাবা ও মামলার বাদী আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বুধবার বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে প্রথম সাক্ষ্য দিয়েছেন। এ সময় তার পুত্রবধূ আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ৯ আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির মধ্যে মুসা বন্ড পলাতক।