কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের সংসদ সদস্য মো. আফজাল হোসেনের বিরুদ্ধে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় নিকলী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনোয়ারুল হককে (৫৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আনোয়ারুল হক নিকলীর সিংপুর ইউপির চেয়ারম্যান। বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর উত্তরার ৯নং সেক্টরের নিজ বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে নিকলী থানা পুলিশ। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জের আদালতে নিয়ে যাওয়ার পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর আগে বুধবার রাত পৌনে ৮টার দিকে নিকলী সদর ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কারার শাহরিয়ার আহমেদ তুলিপ বাদী হয়ে মো. আনোয়ারুল হক, তার ছেলে এআর রকি এবং নিকলী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. ইকবাল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) আসনের পর পর তিনবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য মো. আফজাল হোসেন তার নির্বাচনী এলাকায় খুবই জনপ্রিয়। আসামিরাসহ কিছু কুচক্রী মহল সংসদ সদস্যের জনপ্রিয়তা ও সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে তার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করাসহ তার পরিবার, বাংলাদেশ সরকার ও আওয়ামী লীগের মানহানি করার চেষ্টা করছে। আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে তাদের নিজ নিজ নামীয় ফেসবুক আইডি থেকে বিভিন্ন আপত্তিকর পোস্ট আপলোড এবং শেয়ার করে সংসদ সদস্যের ইমেজ ক্ষুণ্ণ করার চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে নিকলী থানার ওসি মো. শামছুল আলম সিদ্দিকী জানান, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর উত্তরা এলাকার ৯নং সেক্টরের বাসা থেকে মামলার প্রধান আসামি সিংপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আনোয়ারুল হককে গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন করা হবে। এ ছাড়া মামলার অপর দুই আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।