সুশাসন প্রতিষ্ঠা হলে রেলে অনিয়ম বন্ধ হবে: কৃষিমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক- ফাইল ছবি

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক- ফাইল ছবি

বাংলাদেশ রেলওয়েতে সুশাসন চান কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। রেলের অনিয়ম, দুর্নীতি, কালোবাজারে টিকিট কেনাবেচা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সুশাসন প্রতিষ্ঠা হলে সব ধরনের অনিয়ম বন্ধ হবে। সরকারও চায় রেলে সুশাসন প্রতিষ্ঠা হোক।

মঙ্গলবার সংসদের বৈঠকে রেলমন্ত্রীর পক্ষে প্রশ্নোত্তরে কৃষিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। বিএনপি দলীয় সদস্য রুমিন ফারহানার সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, তার নিজের গাড়িচালক তাকে জানিয়েছেন, পঞ্চগড় থেকে রেলের টিকিট কাটতে গেলে টিকিট নেই বলে জানানো হয়েছে। পরে রেলে উঠে দেখা গেছে অনেক সিট খালি যাচ্ছে।

রেলওয়ের অব্যবহূত ভূমি খাস খতিয়ানে এনে তা ভূমিহীনদের মাঝে বরাদ্দ দিতে বিএনপির সদস্য হারুনুর রশীদের প্রস্তাবকে স্বাগত জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, এটি একটি সুন্দর ও গ্রহণযোগ্য প্রস্তাব। তিনি নিজেও বিষয়টি নিয়ে একইভাবে ভেবেছেন। বিষয়টি মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্থাপন করবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দেন মন্ত্রী।

জামালপুরের মোজাফ্‌ফর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ১৯৭২ সালে রেলওয়ের ভূমি ছিল ৬০ হাজার ৪০৫ দশমিক ৮৫ একর। বর্তমানে ভূমির পরিমাণ ৬১ হাজার ৮২০ দশমিক ৩৫ একর। রেলওয়ের ৫৮ হাজার ৬০৬ দশমিক ৫৭ একর ভূমি দখলে রয়েছে। ভূমি লিজ দিয়ে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৪৫৯ কোটি ৩৪ লাখ ৯৩ হাজার ৪৯০ টাকা আয় হয়েছে। মন্ত্রী জানান, বিভিন্ন সংস্থা ও লিজ গ্রহণকারীর কাছে রেলের বকেয়া ১২৪ কোটি ৪৩ লাখ ৬৯ হাজার ১৯৬ টাকা।

১০ বছরে কাঁচাপাট রপ্তানি অর্ধেক কমেছে:

গত ১০ বছরে কাঁচাপাট রপ্তানির পরিমাণ অর্ধেকের বেশি কমেছে। ২০০৮-০৯ অর্থবছরে ১৭ লাখ ৫০ হাজার বেল কাঁচাপাট রপ্তানি হয়। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রপ্তানির পরিমাণ ৮ লাখ ২৫ হাজার বেল। গত ১০ বছর আগের তুলনায় রপ্তানির পরিমাণ ৯ লাখ ২৫ হাজার বেল কমেছে।

ফেনী-২ আসনের সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর প্রশ্নের জবাবে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী এ তথ্য জানান।