শায়লা রিমান্ডে, তানভীরকে খুঁজছে পুলিশ

প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারি ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক ও নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার

শায়লা শারমিন

শায়লা শারমিন

ঢাকার আশুলিয়ার গোকুলনগরের জঙ্গি আস্তানা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া শায়লা শারমিনকে (২২) চার দিনের রিমান্ড নিয়েছে ঢাকা জেলা পুলিশ। মঙ্গলবার আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় শায়লা শারমিনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই রাতেই শায়লা ও তার স্বামী নব্য জেএমবির আইটি বিশেষজ্ঞ তানভীর আহম্মেদসহ তিনজনকে আসামি করে আশুলিয়া থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা করে পুলিশ। অন্য আসামির নাম জাকারিয়া জামিল। তানভীর ও তার সহযোগী জাকারিয়াকে খুঁজছে পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জিয়াউল ইসলাম জানান, সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে শায়লাকে আদালতে হাজির করা হয়। শুনানি শেষে আদালত চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, তানভীর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি বিভাগের ছাত্র। সে নব্য জেএমবির আইটি বিভাগের প্রধান ছিল। শায়লার সঙ্গে তার ফেসবুকে পরিচয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেম এবং ২০১৭ সালে বিয়ে করে তারা। স্বামীর হাত ধরে শায়লা জঙ্গিবাদে জড়ায়। তারা দুজনই হিজরত করেছে। শায়লা পুলিশকে জানিয়েছে, গত রোববারও তার স্বামী বাসায় ছিল। তবে বর্তমানে তার অবস্থান সে জানে না বলে দাবি করেছে। পাঁচ মাস আগে শায়লা-তানভীর আশুলিয়ার গোকুলনগর বসবাস শুরু করে। তবে যে বাসায় অভিযান চালানো হয়, ওই বাসা তারা ২৫ ডিসেম্বর ভাড়ায় ওঠে। শায়লার বাবার বাড়ি গাজীপুরের বহরিয়াচালা গ্রামে। বাবার নাম দুলাল আহমেদ। তানভীরের বাসা রাজধানীর বনশ্রীতে। বাবার নাম মোহাম্মদ আলী।

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, 'তানভীর ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। অন্য সহযোগীদের বিষয়েও তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।'

সিটিটিসির ডিসি সাইফুল ইসলাম বলেন, 'তানভীর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত ক্লাস করে। তবে তার সহপাঠীরা তার জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ার বিষয়টি জানতেন না।'

সোমবার সন্ধ্যায় আশুলিয়ার গোকুলনগর বাজার সংলগ্ন সৌদি প্রবাসী আক্তার হোসেনের ভাড়া বাড়িতে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে অভিযান চালায় ঢাকা জেলা পুলিশ। সেখান থেকে শায়লাকে গ্রেপ্তার করা হয়। স্বামী-স্ত্রী ওই বাসা থেকে জঙ্গি কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছিল।