সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ভোটের দিন পরিবর্তনের নির্দেশনা চেয়ে করা রিট খারিজের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়েছে। 

আবেদনে ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন স্থগিত চাওয়ার পাশাপাশি ভোটগ্রহণের জন্য নতুন তারিখ নির্ধারণ করার জন্য আর্জি জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ এ আবেদন দায়ের করেন। রোববার আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে এ আবেদনের ওপর শুনানি হতে পারে বলে জানান এ আইনজীবী। খবর ইউএনবির

এর আগে, গত ১৪ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ভোটের দিন পরিবর্তনের নির্দেশনা চেয়ে করা রিট সরাসরি খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

আদালত বলেছেন, ২৯ জানুয়ারি সকাল ৯টা ১০মিনিট থেকে এই পূজার তিথি শুরু হয়ে ৩০ জানুয়ারি বেলা ১১টা পর্যন্ত চলবে। তিথির বেশিরভাগ অংশই ২৯ জানুয়ারি পড়ে। আর ২৯ জানুয়ারিকে সরস্বতী পূজার ছুটির দিন ধার্য করে গত ২ ডিসেম্বর সরকারি ক্যালেন্ডার তৈরি করা হয়ছে। কিন্তু ৭ জানুয়ারির আগ পর্যন্ত কেউ কোন আপত্তি তোলেনি। এ অবস্থায় সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর প্রতিক বরাদ্দসহ অনেক কাজ এগিয়েছে। এছাড়া আগামী ১ ফেব্রুয়ারি এসএসসি পরীক্ষা। তাই নির্বাচন পেছানোর কোন সুযোগ নেই।

বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

গত ৫ জানুয়ারি সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণের নির্ধারিত তারিখ ৩০ জানুয়ারির পরিবর্তে অন্য কোন দিন নির্ধারনের জন্য রিট করেন আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ।

আইনজীবী বলেন, ২৯ ও ৩০ জানুয়ারি হিন্দু সম্প্রদায়ের সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হবে। কিন্তু ঢাকায় সিটি নির্বাচন উপলক্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হবে। এ জন্য সিটি নির্বাচনের পেছানোর জন্য রিটটি করা হয়েছে।