বর্তমানে খাদ্যদ্রব্যে ফরমালিন নেই বললেই চলে: খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, 'কয়েক বছর আগেও যেখানে খাদ্যদ্রব্যে ফরমালিনের উপস্থিতি ব্যাপক হারে পাওয়া যাচ্ছিল, সেখানে বর্তমানে খাদ্যদ্রব্যে ফরমালিন নেই বললেই চলে।'

'জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস-২০২০' উপলক্ষে রোববার অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। 'সবাই মিলে হাত মেলায়' নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত চাই'- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রোববার সারাদেশে 'জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস-২০২০' পালিত হচ্ছে। দেশব্যাপী আয়োজনের অংশ হিসেবে সকালে রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমি থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিশনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। কিন্তু দেশের জনগণের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণে এখনও আমরা সম্পূর্ণরূপে সফলতা অর্জন করতে পারিনি। খাদ্য উৎপাদন হতে শুরু করে সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের বিভিন্ন ধাপে খাদ্যদ্রব্য অনিরাপদ হচ্ছে। মানুষ খাদ্য গ্রহণ করে শক্তি অর্জন ও সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য। কিন্তু ভেজাল ও ক্ষতিকর খাদ্য মানুষের জীবনীশক্তি কেড়ে নিচ্ছে।'

খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করে পরবর্তী প্রজন্মকে রক্ষা কর সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, 'আসুন, আজ মুজিববর্ষে আমরা সবাই অনিরাপদ খাদ্যমুক্ত বাংলাদেশের অঙ্গীকার করি। সবাই একসাথে হাতে হাত মিলিয়ে সমাজের সকল স্তরের জনগণের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করি। আমরা শপথ নিই- ভেজাল নিজে দেব না, ভেজাল খাবো না, ভেজাল দিতে দেব না।'

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী মো. আশরাফ আলী খান খসরু বলেন, 'অধিক মুনাফার আশায় খাদ্যে ভেজাল মেশানো হচ্ছে। ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই অপরিচ্ছন্ন কর্মচারী দিয়ে হোটেল-রেস্তোরাঁয় খাদ্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। এগুলো আমাদের পরিহার করতে হবে।'

খাদ্য সচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মাহবুবুর কবীর, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সারোয়ার মাহমুদ, খাদ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য কর্তৃপক্ষ, খাদ্য অধিদপ্তর এবং খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির কর্মকর্তা, বিভিন্ন স্কুল-কলেজ থেকে আগত ছাত্র-ছাত্রী প্রমুখ।