একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে দেশবাসী ভাষা শহীদদের জাতি স্মরণ করছে বিনম্র শ্রদ্ধায়। এর অংশ হিসেবে শুক্রবার সকালে রাজধানীর আজিমপুর কবরস্থানে ভাষা শহীদদের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠন।

সকাল সাড়ে ছয়টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের একটি প্রভাতফেরি অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে শুরু হয়। এরপর প্রভাতফেরিটি নিয়ে আজিমপুর কবরস্থানে গিয়ে ভাষা শহীদদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে সেখানে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ করা হয়। 

বাদ জুমা মসজিদুল জামিয়াসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হলের মসজিদ এবং বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকার মসজিদে ভাষা শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করে করা হয় বিশেষ প্রার্থনা।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ঢাবি উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, বাংলা যেন শুধু সাহিত্যের ভাষা না হয়, এই ভাষা হবে বিজ্ঞানের ভাষা, চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষা, প্রকৌশল বিজ্ঞানের ভাষা, এক কথায় সবার ভাষা। তাহলেই বাংলা আরও সমৃদ্ধ হবে।

তিনি আরও বলেন, বিশ্বের অনেক নৃগোষ্ঠীর ভাষা নিগৃহীত হচ্ছে। ভাষা আন্দোলনের মৌলিক দর্শন ছিল অসাম্প্রদায়িক, সার্বজনীন ও সব জাতি সত্ত্বার মানুষকে সুরক্ষা দেওয়া। 

দিবসটি উপলক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগের উদ্যোগে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) মিলনায়তনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।

থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের উদ্যোগে সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটমণ্ডল মিলনায়তনে জহির রায়হান রচিত ‘একুশের গল্প’ নাটকটি মঞ্চস্থ করা হবে। এছাড়া দিনব্যাপী ক্যাম্পাসে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নানা অনুষ্ঠান রয়েছে।