দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সাময়িক কারামুক্তি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দেওয়া চিঠি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এক অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, তার (খালেদা জিয়া) পরিবার থেকে একটি আবেদন করা হয়েছে। সেই আবেদন অনুযায়ী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কিন্তু তাকে মুক্তি দেওয়ার ক্ষমতা রাখে না। তাকে মুক্তি দিতে হলে আদালতে যেতে হবে। আবেদনপত্র পেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে মতামত নেওয়ার জন্য তা আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত বুধবার খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য কারামুক্তি চেয়ে তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর একটি চিঠি দেন। তবে চিঠিতে প্যারোলের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। আইন মন্ত্রণালয় থেকে একাধিক সূত্র জানিয়েছে, এ-সংক্রান্ত চিঠি আইন মন্ত্রণালয়ে এসেছে। তবে, এ ব্যাপারে এখনও কোনো মতামত দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। চিঠির আইনগত বিষয়টি পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

এদিকে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো চিঠিতে শামীম এস্কান্দার জানিয়েছেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তার দ্রুত উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। বিদেশে উন্নত চিকিৎসার লক্ষ্যে তাকে সাময়িক মুক্তি দেওয়া হোক। এ লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সরকারের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

সূত্র জানায়, ওই চিঠিতে প্যারোলের বিষয়ে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু লেখা হয়নি। তবে উন্নত চিকিৎসার জন্য সাময়িকভাবে মুক্তি চাওয়া হয়েছে। এতে খালেদা জিয়ারও সম্মতি রয়েছে।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত এক কর্মকর্তা জানান, শামীম এস্কান্দার নিজেই মন্ত্রণালয়ে গিয়ে চিঠিটি দিয়ে এসেছেন। চিঠিতে কী লেখা হয়েছে, সেটা তিনি জানেন না।

এদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যে আবেদন করা হয়েছে তাতে কী আছে তা জানা নেই। তিনি আরও বলেন, এ বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে তার ও তার পরিবারের ব্যাপার। সে ক্ষেত্রে আমরা এখন কিছু বলতে চাই না। তবে দলের পক্ষ থেকে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

গত বছর ১ এপ্রিল থেকে কারা বিভাগের তত্ত্বাবধানে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা চলছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে।