বিক্ষোভে বন্ধ হল এক সপ্তাহের মধ্যে করোনা হাসপাতাল তৈরির কাজ

প্রকাশ: ২৮ মার্চ ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

তেজগাঁওয়ে হাসপাতাল তৈরির কাজ চলাকালে স্থানীয়রা বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করেন-সংগৃহীত ছবি

তেজগাঁওয়ে হাসপাতাল তৈরির কাজ চলাকালে স্থানীয়রা বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করেন-সংগৃহীত ছবি

স্থানীয়দের বিক্ষোভের কারণে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য রাজধানীতে জরুরি ভিত্তিতে বিশেষায়িত হাসপাতাল বানানোর সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে আকিজ গ্রুপ। এক সপ্তাহের মধ্যে হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা ছিল তাদের।

আকিজ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বশীর উদ্দীন শনিবার বলেন, হাসপাতাল বানানোর কাজে নিয়োজিত আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা হওয়ায়  আমরা এ কাজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। খবর ইউএনবির

দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগোষ্ঠী আকিজ গ্রুপ রাজধানীর তেজগাঁওয়ে তাদের নিজস্ব দুই বিঘা জমিতে জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালটি তৈরির কাজ শুরুর পদক্ষেপ নিয়েছিল।

করোনাভাইরাসের উৎসস্থল চীনের উহান শহরের একটি মাঠে কয়েক দিনের মধ্যে হাসপাতাল তৈরির ধারণা থেকে বাংলাদেশে একটি হাসপাতাল করার কাজ হাতে নিয়েছিল আকিজ গ্রুপ।

চীনে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়ায় তাদের চিকিৎসার জন্য উহানের হুশেনশান মাঠে অস্থায়ী হাসপাতালটি জরুরি ভিত্তিতে মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে তৈরি করা হয়েছিল।

বশির বলেন, আকিজ গ্রুপ কয়েকদিন আগে এ হাসপাতাল তৈরির কাজ শুরু করেছিল এবং কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে নিয়ে এক সপ্তাহের মধ্যে শেষ করার কথা ছিল।

তবে কাজ চলাকালে এক পর্যায়ে স্থানীয়রা হাসপাতাল তৈরির বিরোধিতা করতে শুরু করেন। তাদের ধারণা এ এলাকায় হাসপাতাল করা হলে করোনাভাইরাস তাদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়বে। তাই তারা এখানে এ ধরনের কোনো হাসপাতাল করতে দেবেন না, বলেন তিনি।

হাসপাতাল তৈরির কাজে সংশ্লিষ্টরা বলেন, শনিবার হাসপাতাল তৈরির কাজে নিয়োজিত আকিজ গ্রুপের লোকদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে।

তারা জানান, এক সপ্তাহের মধ্যে তাদের হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা ছিল এবং পরের সপ্তাহে প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি স্থাপন শেষে কয়েক দিনের মধ্যে চিকিৎসাসেবা দেয়া শুরু করার জন্য কাজ করছিলেন তারা।

বশীর উদ্দীন বলেন, জরুরি সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে হাসপাতাল নির্মাণে চীন সরকারের সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে তারা এ হাসপাতালটি তৈরি করছিলেন এবং এ কাজে চিকিৎসকদের একটি দল সহযোগিতা করছে।

হামলার বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের ওসি আলী হোসেন খান জানান, স্থানীয় লোকজন এ হাসপাতাল তৈরির বিরোধিতা করেছে এবং কাজে বাঁধা দেয়ার জন্য শ্রমিকদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

তিনি জানান, স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশকে না জানিয়ে এ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। যে এলাকায় হাসপাতালটি তৈরি করা হচ্ছে সেটা ঘনবসতি এলাকা এবং একটি বস্তি রয়েছে।

বিক্ষোভের খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয় কাউন্সিলর ঘটনাস্থলে যান এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ওসি আলী হোসেন খান জানান, ঘটনস্থলটি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের নির্বাচনী এলাকাভুক্ত। সে জন্য পুলিশ এ বিষয়টি তার নজরে আনবে বলেও জানান তিনি।