মিশন সেভ বাংলাদেশ

‘ফেসবুকে মেসেজ দিয়ে এতো দ্রুত সহায়তা পাবো ভাবিনি’

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০২০     আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

‘মিশন সেভ বাংলাদেশ’ এর উদ্যোগে মো. বেলাল হোসেনের হাতে বুধবার সহায়তা তুলে দেওয়া হয়। মো. বেলাল হোসেনের অনুমতি নিয়ে ছবিটি প্রকাশ

‘মিশন সেভ বাংলাদেশ’ এর উদ্যোগে মো. বেলাল হোসেনের হাতে বুধবার সহায়তা তুলে দেওয়া হয়। মো. বেলাল হোসেনের অনুমতি নিয়ে ছবিটি প্রকাশ

করোনার ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে নিজের দোকান বন্ধ থাকায় পরিবারের ছয় সদস্য নিয়ে খাবারের অভাবে পড়েছিলেন চট্টগ্রামের মোবাইল মেরামতকারী দোকানি মো. বেলাল হোসেন। ‘মিশন সেভ বাংলাদেশ’ এর ফেসবুকে পেজে নিজের দুর্দশার কথা জানিয়ে মেসেজ দেন তিনি। 

মেসেজ দেওয়ার একদিনই পর বুধবার সহায়তা পেয়ে বিস্মিত বেলাল বলেন, ‘চক্ষুলজ্জার ভয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ার পরও কোনোদিন কারো কাছে সহায়তা চাইনি। কিন্তু কয়েকদিন ধরে বাসায় আটকে আছি, দোকাল খুলতে পারছি না। আয় একদম বন্ধ। পরিবারের সবার মুখের দিকে তাকিয়ে কোনো কিছু না ভেবেই মিশন সেভ বাংলাদেশের ফেসবুক পেজে সহায়তা চেয়ে মেসেজ লিখি। ভেবেছিলাম তারা দেখবেই না। কিন্তু মেসেজের একদিন পরই তাদের কাছ থেকে সহায়তা পেয়ে মনে হয়েছিল যেন কল্পনায় আছি।’

মিশন সেভ বাংলাদেশের, চট্টগ্রাম, লিড সাজিব আকবর বলেন, ‘আমাদের ফেসবুকে পেজে প্রতিদিনই অনেকে সহায়তা চেয়ে মেসেজ দিচ্ছেন। আমরা সবার মেসেজে চেক করে সবার পাশে দাঁড়ানো চেষ্টা করি। বেলাল হোসেনের মেসেজ পেয়ে আমরা তার সাথে যোগাযোগ করে জানতে পারি তিনি খুব অভাবগ্রস্ত অবস্থায় আছেন। আমরা দ্রুত তার ঘরে ১০ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, দুই কেজি আলু, এক কেজি সয়াবিন তেল, লবণ এক কেজি, চিড়া এক কেজি ও সাবান একটি পৌঁছে দেই।’

'মিশন সেভ বাংলাদেশ' এর অন্যতম উদ্যোক্তা ইমরান কাদির বলেন, 'বেলাল হোসেনের মতো অনেকেই প্রতিদিন তাদের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরে সাহায্য সহযোগিতা কামনা করছেন। কিন্তু সবার কাছে পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে না। তবে আমরা সাধ্য মতো চেষ্টা করছি, ফেসবুকে মেসেজ পেয়ে অনেকের হাতে খাদ্যপণ্য পৌঁছে দিচ্ছি।' তার মতে, সংকটে পড়া সবার কাছে সহায়তা পৌঁছানোর কাজটি বেশ কঠিন এবং মিশন সেভ বাংলাদেশ-এর একার পক্ষে করা কষ্টসাধ্য। তাই অন্যদেরও এ কাজে এগিয়ে আসবে হবে।

শুধু বেলাল হোসেন নয় প্রতিদিন তারমতো সংকটে পড়া অনেকের ঘরে খাবার পৌঁছে দিচ্ছে ‘মিশন সেভ বাংলাদেশ’ উদ্যোগ। সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বিরূপ প্রভাব ফেলেছে মানুষের জীবনযাপনে। অন্য দেশের মতো এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বাংলাদেশেও মানুষের চলাচলে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে টিকে থাকা কঠিন হয়ে পড়েছে নিম্নআয়ের মানুষের। এ অবস্থায় তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে 'মিশন সেভ বাংলাদেশ'। শনিবার থেকে এ উদ্যোগে যুক্ত হয়েছেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। 

সেবা এক্সওয়াইজেড, সমকাল ও ডেইলি স্টারের এ উদ্যোগের পাশে অর্থ ও অন্যান্য সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসেছে আইপিডিসি ফাইন্যান্স, পিএফডিএ, স্বপ্ন, এসএসএল কমার্স, মিরপুর ডিওএইচএস সোসাইটি, ডানো, গুলশান সোসাইটি, পাঠাও, ডাবর বাংলাদেশ, তরুণ ডিজিটাল, ইউনিমার্ট, জেসিআই ঢাকা নর্থ, কর্ম, এডিএ, নিজের বলার মতো একটা গল্প, রবি টেন মিনিট স্কুল, সেফ হ্যান্ডস, ডেভোটেক, ডাক্তার ভাই, উইন্ডমিল, অমিকন গ্রুপ, জাস্টস্টোরিজ, মেমোরিলেন, এডুহাইভ, লেকচার পাবলিকেশনস লিমিটেড, ই-কুরিয়ার, মহাখালী ডিওএইচএস সোসাইটি, রোয়ার বাংলা, বনানী সোসাইটি, চ্যারিটি রাইট, ভ্রুম, স্পাইক স্টোরি, পেপারফ্লাই, বঙ্গ, মাস্টহেড পিআর, সিএনআই, অ্যাঞ্জেল শেফ, স্মার্টিফায়ার, জেসিআই ঢাকা সাউথ, শাশা ডেনিমস, অলিম্পিক, চল ঘুরি, আডন কমিউনিকেশন, পপ অব কালার, আর্থমুভিং সলিউশন, মাইন্ডম্যাপার, ট্রাক কোথায়, মেন্টরস, অসীম এন্টারপ্রাইজ, হাই ভোল্টেজ লিমিটেড, সি থ্রি সিক্সটি, গ্রো অ্যান্ড এক্সেল, হরলিক্স, সামিট কমিউনিকেশন লিমিটেড, সেইলর, টেকনো ড্রাগস লিমিটেড, নন্দ-দুলাল মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফাউন্ডেশন, জেসিআই চিটাগং কসমোপলিটান, ওয়ান পার্সেন্ট ফাউন্ডেশন, অ্যারোলিংক, ওয়ান্ডার ওমেন, রেনাটা লিমিটেড, এস ম্যানেজার এবং এস বিজনেস।

যে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সামর্থ্য অনুযায়ী 'মিশন সেভ বাংলাদেশ' উদ্যোগে আর্থিক সহায়তা দিয়ে যুক্ত হতে পারেন। বিস্তারিত জানতে অথবা অনুদান দিতে ভিজিট করুন (https://samakal.com/MissionSaveBangladesh) এ ঠিকানায়।

............................................

ভেন্টিলেটর তৈরিতে পাশে থাকবে 'মিশন সেভ বাংলাদেশ'

আরও আড়াইশ' পরিবার পেল ১০ দিনের খাবার

ধন্যবাদ সাকিব আল হাসান

আরও ১১০ পরিবার পেল ১০ দিনের খাবার

তারা পেলেন ১০ দিনের খাবার

সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে 'মিশন সেভ বাংলাদেশ'

'মিশন সেভ বাংলাদেশ'