করোনার উপসর্গ জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্টে দেশের বিভিন্ন স্থানে শিশুসহ আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার থেকে গতকাল শনিবারের মধ্যে তারা মারা গেছেন। আইসোলেশনে আছেন ছয়জন। এরই মধ্যে মারা গেছেন এবং উপসর্গ আছে এমন ব্যক্তিদের মধ্যে ৬০ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ছাড়া ৪৯টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। ৩০ মার্চ থেকে গতকাল পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনা উপসর্গে এ নিয়ে মোট ৫০ জনের মৃত্যু হলো।

নাটোরে জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত ব্যক্তি শুক্রবার রাতে মারা যান। সদর উপজেলার কাফুরিয়া গ্রামের ওই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন কিনা, তা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল জ্বরে আক্রান্ত ইমন (৪) মারা যায়। শুক্রবার সন্ধ্যায় শ্বাসকষ্টে মারা যায় হাবীব (২)। ইমন উপজেলার চরমার্টিন এলাকার নুরুল আমিনের এবং হাবীব উপজেলার তোরাবগঞ্জের সবুজের ছেলে।

তাদের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় চারটি বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন।

মৌলভীবাজারের রাজনগরের টেংরাবাজারের এক ব্যবসায়ী জ্বর ও শ্বাসকষ্টে গতকাল নিজ বাড়িতে মারা গেছেন। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। মৃত ব্যক্তির স্ত্রী ও চিকিৎসাসেবা দেওয়া পল্লিচিকিৎসকেরও নমুনা সংগ্রহ করা হয়। উভয় পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বগুড়া স্টেডিয়াম ফাঁড়ির এসআই জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, বগুড়া শহরের পুরান বগুড়ায় ছেলের ভাড়া বাসায় গত ২৪ মার্চ বেড়াতে আসেন এক ব্যক্তি (৭০)। গতকাল শ্বাসকষ্টে তিনি মারা গেছেন। তাদের বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে। মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হবে বলে জানান সিভিল সার্জন।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে সর্দি ও জ্বরে তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি সদর উপজেলার চন্দ্রপুরের রায়পুরে। গতকাল সকালে তাকে হাসপাতালে আনার পরপরই মারা যান। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় চারটি পরিবারের সাতজনকে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

গতকাল নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলা সদরের বড়হাটি গ্রামে সর্দি-জ্বর ও শ্বাসকষ্টে নৃপেন্দ্র নাথ (৫৫) নামে এক দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। এরপর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। সিভিল সার্জন তাজুল ইসলাম বলেন, শুক্র ও শনিবার জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ২৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

জ্বর-সর্দি ও শ্বাসকষ্টে শুক্রবার নারায়ণগঞ্জের দুই ব্যবসায়ী মারা গেছেন। তারা হলেন নগরের ১ নম্বর বাবুরাইল এলাকায় ফয়সাল সুজন (৪৬) ও নগরের দেওভোগ গাঙ্গুলীবাড়ি এলাকার আবু সাঈদ (৫২)। তৈরি পোশাকের ব্যবসায়ী সুজন নিজ বাড়িতে এবং হোসিয়ারির মালিক সাঈদ ঢাকার একটি ক্লিনিকে মারা যান।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের মুন্সিকান্দি গ্রামে শুক্রবার রাতে জুলেখা বেগম (৫৫) নামের এক নারী মারা গেছেন। তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে জানা যায়। এ ঘটনায় গতকাল মৃতের বাড়িসহ আশপাশের পাঁচটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।

বগুড়া ও চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে আরও ৬ ব্যক্তি আইসোলেশনে : জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্ট থাকায় ২৭ বছর বয়সী এক নারীকে শুক্রবার রাতে এবং এক যুবক ও আরেক নারীকে (৬৫) গতকাল আইসোলেশন ইউনিট হিসেবে গড়ে তোলা মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ধুনটের ওই যুবক ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করতেন। বগুড়া শহরের ফুলবাড়ী দক্ষিণপাড়ায় ওই নারীর স্বামী সৌদিপ্রবাসী। আরেক নারীর বাড়ি শাজাহানপুরে। করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহের কাজে অংশ নেওয়ায় চট্টগ্রামের কর্ণফুলীর শাহমীরপুর এলাকার তিনজনকে গতকাল চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের পরিবারকেও কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

কুমিল্লায় ৯ জনের শরীরে করোনা নেই : কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান জানান, বৃহস্পতি ও শুক্রবার ১৭ উপজেলার প্রতিটি থেকে দুটি করে ৩৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ফল পাওয়া গেছে ৯ জনের এবং তাদের মধ্যে করোনা পাওয়া যায়নি। বাকিদের রিপোর্ট এখনও পাওয়া যায়নি।

কোয়ারেন্টাইন, নমুনা সংগ্রহ, প্রচার ও জরিমানা : কিশোরগঞ্জের নিকলীতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক এক শিক্ষকের সাত সদস্যের পরিবারকে শুক্রবার থেকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গতকাল পরিবারটির এক সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। কুড়িগ্রাম পৌরসভা এবং রাজারহাট, নাগেশ্বরী ও ভুরুঙ্গামারীর চারজনের নমুনা গতকাল সংগ্রহ করে রমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। তারা ঢাকায় থাকতেন। চট্টগ্রাম নগরে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা তিন চিকিৎসক, এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ ১৯ জনকে শুক্রবার রাতে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়। গতকাল আক্রান্তের বাড়িসহ ৯টি বাড়ি লকডাউন করা হয়। আক্রান্ত ওই ব্যক্তি জেনারেল হাসপাতালে যাওয়ার আগে বেসরকারি ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। এদিকে রামেক হাসপাতালে এক নার্সসহ ১২ জন চিকিৎসাধীন। গতকাল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের দায়িত্বে থাকা চিকিৎসকরা সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। এ ছাড়া জনসচেতনতায় গতকাল দিনভর মাঠে ছিল সেনাবাহিনী। গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরের বনগ্রাম ইউনিয়নের হবিবুল্লাপুর গ্রামের সেই বিয়েবাড়িসহ ১৫ পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে গতকাল। আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসায় গতকাল রংপুর সদর উপজেলার সদ্যপুস্করণী ইউনিয়নের জানকিরহাট নয়াপাড়া এলাকায় আটটি বাড়ি লকডাউন করেন প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা। মৌলভীবাজারে নতুন চারজনসহ ৭৯ জন কোয়ারেন্টাইনে আছেন। জেলার সাত উপজেলার ২০ জনের নমুনা আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। দক্ষিণ চট্টগ্রামের পটিয়া, সাতকানিয়া ও চন্দনাইশে ছয়টি বাড়ি লকডাউন করা হয় গতকাল। শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের পাঠানটুলীতে বাড়ির মালিক, ভাড়াটিয়াসহ ৯ পরিবারকে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। রাঙামাটিতে জনসচেতনতা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশ। গতকাল নিয়ম না মানায় চারজনকে জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া কল করলেই খাবার পৌঁছে দিচ্ছে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ। বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালের পাঁচ চিকিৎসক, আট নার্সসহ ১৬ জনকে শুক্রবার থেকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। নারায়ণগঞ্জের বন্দরে করোনা সন্দেহে এক দম্পতিকে দুই ঘণ্টা আটকে রাখার অভিযোগ পেয়ে তাদের উদ্ধার করে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন ইউএনও।

এদিকে, করোনা মোকাবিলায় ছয় দাবি জানিয়েছে কিশোরগঞ্জ জেলা কমিউনিস্ট পার্টি। এ ব্যাপারে তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ চান।