করোনায় আক্রান্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সেই শিক্ষার্থী এখন সুস্থ হওয়ার পথে। তার শরীরে মৃদু সংক্রমণ হয়েছে বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। 

ওই শিক্ষার্থীর শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ খুব বেশি না হওয়ায় তাকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়নি। তার বাসা ও এলাকাও লকডাউন করা হয়নি। ওই শিক্ষার্থীর আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টিও জানে না স্থানীয় প্রশাসন বা পুলিশ।

ওই শিক্ষার্থী জানান, কিছুদিন আগে জ্বর, হাঁচি-কাশি ও শ্বাসকষ্টে খুব ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে ছিলেন তিনি। গত দু'দিন আগের থেকে ভালো আছেন এবং সুস্থ আছেন। যে কারণে গতকাল বুধবার আইসোলেশনে নেওয়ার কথা থাকলেও তাকে নেওয়া হয়নি। আইইডিসিআর থেকে জানানো হয়েছে, অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে আইসোলেশনে নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমি মানসিকভাবে শক্ত থাকার চেষ্টা করছি। এখন পরিবারের সঙ্গে উত্তরার বাসায় আলাদা একটি রুমে অবস্থান করছি। তিনি অভিযোগ করেন, করোনা পজিটিভ হওয়ার পরও পুলিশ বা স্থানীয় প্রশাসনের কেউ তার সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। তিনি যে ভবনে অবস্থান করছেন, সেখানেও লকডাউন দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে অস্বস্তি রয়েছে।

দক্ষিণখান থানার এসি ফয়সাল জানান, তার এলাকায় যে করোনা আক্রান্ত রোগী আছেন, তিনি সে ব্যাপারে অবগত নন। আইইডিসিআর থেকেও তাকে জানানো হয়নি। জানলে তিনি তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতেন।

আইইডিসিআর থেকে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনকে কেন জানানো হয়নি বা বাসা ও এলাকা কেন লকডাউন করা হয়নি?- এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইইডিসিআরের নির্ধারিত চিকিৎসক তাসলিমা ইসলাম বলেন, এটা আমার দেখার বিষয় না। আমাদের ডিজি আছেন, উনি সেটা দেখবেন। আমাকে শুধু তার (শিক্ষার্থী) রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে, আমি সেটা অনুযায়ী কাজ করছি।