করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং তাদের জন্য বীমা সুবিধাসহ সরকার ঘোষিত অন্যান্য সুবিধা কীভাবে বাস্তবায়িত হবে, তা নিয়ে একটি সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের নির্দেশনা চেয়ে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রীপরিষদ সচিব, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব, আইন মন্ত্রণালয় সচিব এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিবের সরকারি ই-মেইলে এ নোটিশ পাঠানো হয়।

নাইটিঙ্গেল মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. ওবায়দুর রহমানের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানজিম আল ইসলাম এ নোটিশ পাঠান। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার নোটিশটি পাঠানো হয়েছ। এটি পাওয়ার তিন কার্যদিবসের মধ্যে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তার স্বার্থে একটি সুনির্দিষ্ট আইন প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ এবং প্রয়োজনে অ্যাডহক ভিত্তিতে চিকিৎসক নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। তা না হলে হাইকোর্ট বিভাগে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা চেয়ে রিট দায়ের করা হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের সরকারি-বেসরকারি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ করে তুলতে নিষ্ঠার সঙ্গে নিরলস চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছেন। পর্যাপ্ত ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) না থাকায় অনেক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন। নোটিশে আরও বলা হয়, জানা যাচ্ছে, একদল বাড়িওয়ালা চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বাসা ছেড়ে দেওয়ার মতো অযৌক্তিক এবং অমানবিক নির্দেশ প্রদান করছেন, যা তাদের মানসিকভাবে দুশ্চিন্তার মধ্যে ফেলে দিচ্ছে।