করোনা মহামারির মধ্যে ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে আটটি বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করবে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। আগামী ২০ থেকে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত এসব ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল শুক্রবার সমকালকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

মন্ত্রী জানান, এসব বাংলাদেশি নাগরিক বিভিন্ন প্রয়োজনে ভারত ভ্রমণে গিয়ে করোনা সংক্রমণজনিত পরিস্থিতিতে দেশে ফিরতে পারেননি। তাদের ভারতের কয়েকটি স্থান থেকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। দেশে ফেরার পর তাদের কোয়ারেন্টাইন সংক্রান্ত নির্দেশনা বাধ্যতামূলকভাবে মানতে হবে।

এ ব্যাপারে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম সমকালকে জানান, কেবল বাংলাদেশি নাগরিকদের আনার জন্য ভারতের চেন্নাই ও কলকাতা থেকে আটটি বিশেষ ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। এর মধ্যে ছয়টি ফ্লাইট ঢাকা-চেন্নাই এবং দুটি ফ্লাইট ঢাকা-কলকাতা রুটে পরিচালিত হবে। কলকাতা থেকে দুটি ফ্লাইটে বাংলাদেশি যাত্রীদের আনা হবে ২১ ও ২৩ এপ্রিল। আর ২০ থেকে ২৫ এপ্রিল প্রতিদিনই চেন্নাই থেকে ঢাকায় বিশেষ ফ্লাইট পরিচালিত হবে। সব ফ্লাইট ১৮৮ আসনের বোয়িং ৭৭৭-৮০০ ইআর উড়োজাহাজ দিয়ে পরিচালনা করা হবে। তিনি আরও জানান, যাত্রীরাই টিকিটের ব্যয় বহন করবেন। এসব বিশেষ ফ্লাইটে প্রায় দেড় হাজার বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।

গত ৩ এপ্রিল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল, কভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের কারণে এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থীসহ প্রায় আড়াই হাজার বাংলাদেশি ভারতে আটকা পড়েছেন।