করোনাভইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় বাংলাদেশের জন্য এক লাখ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট এবং ৫০ হাজার জীবাণুমুক্ত সার্জিকাল ল্যাটেক্স গ্লাভস এসেছে ভারত থেকে। সার্ক কোভিড-১৯ জরুরি তহবিলের আওতায় এসব চিকিৎসা সামগ্রী এসেছে। 

রোববার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের হাতে এসব হস্তান্তর করেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ।  ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সার্ক কোভিড-১৯ জরুরি তহবিলের আওতায় এবং কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টায় সাহায্য করার উদ্দেশ্যে এই সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ২৫ মার্চ এই তহবিলের অধীনে ৩০ হাজার সার্জিক্যাল মাস্ক এবং ১৫ হাজার হেড-কভার সমন্বিত জরুরি চিকিৎসা সহায়তার চালান এসেছিল ভারত থেকে। 

বিশ্বে ভারতেই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন সবচেয়ে বেশি উৎপাদন হয়।  করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ম্যালেরিয়ার এই ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন হাতিয়ার হতে পারে বলে আশার কথা শুনিয়েছেন একাধিক দেশের বিশেষজ্ঞরা। স্বীকৃত পরীক্ষায় একশ’ ভাগ প্রমাণ না পাওয়া গেলেও  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতের কাছ থেকে এ ওষুধ চেয়েছিলেন। ভারত সরকার প্রথমে নিজ দেশের চাহিদা মেটাতে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও পরে সিদ্ধান্ত নেয়, প্রতিবেশি দেশগুলোসহ যেসব দেশের ওষুধটি প্রয়োজন তাদেরকে সেটি দেবে তারা। ভারত এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ব্রাজিল এবং জাপানকে এ ওষুধ দিয়েছে।