অনলাইন ভিত্তিক পরিবেশবাদী সংগঠন বাংলাদেশ নদী বন্ধু সমাজ-এর আহ্বায়ক কমিটি গঠিত গঠিত হয়েছে। এসো নদীর বন্ধু হই, নদী সুরক্ষায় ব্রতী রই- এ বক্তব্য সামনে রেখে সম্প্রতি এ সংগঠনটি কতিপয় পরিবেশ কর্মী মিলে অনলাইনে সংগঠনটি গড়ে তোলেন। সোমবার এ সংগঠনটি সাত সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেছে। এতে প্রভাষক প্রাণকৃষ্ণ বিশ্বাস প্রান্ত আহ্বায়ক ও সাংবাদিক ও আলোকচিত্রী দেবদাস মজুমদারকে সদস্য সচিব করে সাত সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্যন্য সদস্যরা হলেন, যথাক্রমে যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক জহির উদ্দিন মো. বাবর, যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক মাহমুদা খানম, সদস্য অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন, সদস্য অধ্যাপক সুপ্রভাত মজুমদার ও সদস্য সিনিয়র শিক্ষক শামীমা সুলতানা।

সংগঠনটি উপকূলের নদী সুরক্ষায় মানুষকে সম্পৃক্ত করতে নানা জনহিতকর পরিবেশ বিষয়ক নানা কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করবে বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ নদী বন্ধু সমাজ এর আহ্বায়ক প্রভাষক প্রাণকৃষ্ণ বিশ্বাস প্রান্ত বলেন, বাংলাদেশের প্রাণের স্পন্দন আমাদের নদী। নদী আমাদের জাতীয় সত্ত্বার এক অনবদ্য অংশ। নদীকে বাঁচিয়ে রাখা তথা এর গতিধারা বাঁধাহীন চলমান রাখা নদীমাতৃক বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের নৈতিক দায়িত্ব। পরিবেশ ভাবনার তরুণকে নদী সুরক্ষায় বা এর সংরক্ষণে সম্পৃক্ত করে নদীর নানা কর্মসূচি হাতে নেবে। বিশেষ করে সংগঠনটি নদী ভ্রমণ, সরেজমিনে নদী পরিদর্শন, নদীর অর্থনৈতিক ও পর্যটন গুরুত্ব বিশ্লেষণ, নদী বিষয়ে নদী পাড়ের মানুষের সাথে তথ্যের আদান প্রদান, নদী পাড়ের মানুষ ও তরুণ প্রজন্মকে সচেতন করা ইত্যাদি কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবে।

প্রাণকৃষ্ণ বিশ্বাস আরও বলেন, নদী বাঁচলেই বাংলাদেশ বাঁচবে। নদী বাঁচলেই প্রাণের অস্থিত্ব টিকে থাকবে। সভ্যতা ও সংস্কৃতি টিকে থাকবে। অবহেলিত নদী কেন্দ্রিক মানুষ, জলচর ও জল নির্ভর প্রাণ বৈচিত্র্য সেবা ও বিরূপ পরিবেশ থেকে নিরাপদ-বাসযোগ্য আশ্রয় পাওয়ার অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নদী বন্ধু সমাজ বঞ্চিত মানুষের পক্ষে কথা বলার একটি প্লাটফর্ম। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি