গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র উদ্ভাবিত কভিড-১৯ সংক্রান্ত কিটের পরীক্ষার ফলাফল আগামী সপ্তাহে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরকে দেবে বঙ্গবন্ধু শেষ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)।

এ সপ্তাহে ওই ফলাফল দেওয়ার কথা থাকলেও তা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে বুধবার সমকালকে নিশ্চিত করেছেন বিএসএমএমইউ-এর উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া।

তিনি জানান, এই কিট পরীক্ষার জন্য গঠিত কমিটি বুধবার বিকেলে তাকে জানিয়েছে মঙ্গলবার পর্যন্ত পরীক্ষার কাজ চলেছে। পরীক্ষা শেষে বুধবার থেকে ডাটা প্রসেসিং এর কাজ শুরু হয়েছে। এ কাজ শেষ হতে আরও চার থেকে পাঁচ দিন লেগে যেতে পারে। এ কারণে এ সপ্তাহে কিটের ফলাফল ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরকে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

উপাচার্য বলেন, আশা করা হচ্ছে আগামী সপ্তাহের মধ্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অ্যান্টিবডি কিট পরীক্ষার ফলাফল দেওয়া সম্ভব হবে।

গত মার্চ মাসে কভিড-১৯ শনাক্তে র‌্যাপিড কিট উদ্ভাবন করে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। ডা. জীবন শীলের নেতৃত্বে ডা. নিহাদ আদনান, ডা. মোহাম্মদ রাঈদ জমিরউদ্দিন ও ডা. ফিরোজ আহমেদের সমন্বয়ে গবেষক দল কভিড-১৯ সনাক্তকরণ কিট তৈরি করে। এরপর সেই কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য তৃতীয় পক্ষ পরীক্ষার অনুমোদন নিয়ে বেশ কিছু জটিলতার সৃষ্টি হয়।

অবশেষে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অনুমোদনের পর গত ১৩ মে বিএসএমএমইউকে কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য কিট জমা দেয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। এ কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষায় বিএসএমএমইউ এর ভাইরোলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. শাহীনা তাবাসসুমকে প্রধান করে ৬ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।