করোনাভাইরাস মহামারির কারণে আটকে থাকা পাঁচটি সংসদীয় আসনের মধ্যে পাবনা-৪ আসনে ২৬ সেপ্টেম্বর ভোটের দিন নির্ধারণ করে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। একই সঙ্গে ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচন ১৭ অক্টোবর করার সিদ্ধান্ত হলেও তফসিল ঘোষণা করা হয়নি। আগামী সপ্তাহে এই দুই আসনের তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে। তবে ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের ভোটের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে অনুষ্ঠিত কমিশন সভা শেষে ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। এর আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে কমিশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্য কমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন।

ইসি সচিব ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী পাবনা-৪ আসনের নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী প্রার্থীরা ২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারবেন। ৩ সেপ্টেম্বর বাছাইয়ের পর ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে। ভোটগ্রহণ হবে ২৬ সেপ্টেম্বর। 

ইসি সচিব জানান, পাবনার এ উপনির্বাচন হবে ব্যালট পেপারে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ চলবে। গত ২ এপ্রিল সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে পাবনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরপর ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করার কথা থাকলেও করোনা মহামারির কারণে তা সম্ভব হয়নি।

বৈঠক শেষে প্রেসব্রিফিংয়ে ইসি সচিব মো. আলমগীর জানান, ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে ১৭ অক্টোবর ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই দুই নির্বাচনের তফসিল সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে ঘোষণা হবে। গত ৬ মে হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুতে ঢাকা-৫ আসন এবং ২৮ জুলাই ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে নওগাঁ-৬ আসন শূন্য হয়। এ ছাড়া ১৩ জুন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে সিরাজগঞ্জ-১ আসন এবং ৯ জুলাই সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে ঢাকা-১৮ আসন শূন্য হয়।

বিষয় : করোনাভাইরাস ইসি

মন্তব্য করুন