পাউবোর প্রধান প্রকৌশলীসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

প্রকাশ: ২১ অক্টোবর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বাজারমূল্যের চেয়ে বেশি দামে নদী সেচের পাম্প কিনে সরকারি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) প্রধান প্রকৗশলী (যান্ত্রিক সরঞ্জাম) চৌধুরী নজমুল আলমসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. সহিদুর রহমান বাদী হয়ে কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় হবিগঞ্জে এ মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে 'মনু নদীর সেচ প্রকল্পের আওতাধীন কাশিমপুর পাম্প হাউস পুনর্বাসন প্রকল্পের' ৩৪ কোটি ৪২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এ ক্ষেত্রে নিজেরা লাভবান হওয়ার উদ্দেশ্যে সেচকাজের জন্য প্রকৃত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে পাম্প কিনেছেন। দুদকের অনুসন্ধানে এই কেনাকাটায় দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়া গেছে।

আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলাটি করা হয়।

অন্য দশ আসামি হলেন- পাউবোর পাবনা পওর সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও সাবেক প্রকল্প পরিচালক এসএম শহিদুল ইসলাম, ঢাকা যান্ত্রিক (পাম্প হাউস) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আনিছুর রহমান, ঢাকার কেন্দ্রীয় যান্ত্রিক সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আবু তালেব, ঢাকা যান্ত্রিক (পাম্প হাউস) বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এম গোলাম সারওয়ার, পাউবোর নকশা সার্কেল-৩-এর নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) মোহাম্মদ আব্বাছ আলী, ঢাকার ডিজাইন সার্কেল-১-এর তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. আবদুল বাছিত, চাঁদপুর যান্ত্রিক উপবিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মো. রুহুল আমিন, সিগমা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল, চেয়ারম্যন প্রকৌশলী সৈয়দ আরশেদ রেজা ও জেনারেল ম্যানেজার প্রকৌশলী মো. আবদুস সালাম।