জনতা ব্যাংকের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংকটির সাবেক সিনিয়র অফিসার নওরীন জাহান নীতুর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। 

দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জেসমিন আক্তার বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ মামলাটি করেন।

এজাহারে বলা হয়, নওরীন জাহান প্রতারণা, জালিয়াতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে ব্যাংকের মোট ৩২ কোটি ১৭ লাখ ৩৬৯ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। দুদকের অনুসন্ধানে তার অর্থ আত্মসাতের প্রমাণ মিলেছে। ব্যাংকের অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটির তদন্তেও আত্মসাতের প্রমাণ পাওয়া যায়।

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে নওরীন জাহানকে প্রথমে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। পরে তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। ব্যাংকের তদন্ত কমিটির কাছে অর্থ আত্মসাতের দায় স্বীকার করে অর্থ পরিশোধের মুচলেকাও দিয়েছেন তিনি।

এজাহারে আরও বলা হয়, ব্যাংকের সাসপেন্স লিগ্যাল এক্সপেন্স হিসাব, সান্ড্রি ডিপোজিট ও সান্ড্রি ক্রেডিটরস হিসাব ও মেসার্স বটম গ্যালারি (প্রা.) লিমিটেডের হিসাব থেকে কৌশলে টাকা অন্য হিসাবে স্থানান্তর করেন। পরে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন শাখা থেকে ওই টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন।

দুদক সূত্র জানায়, ব্যাংকের তদন্ত কমিটির কাছে দেওয়া অঙ্গীকারনামা অনুযায়ী নওরীন জাহান বিভিন্ন সময়ে বেশ কয়েকটি কিস্তিতে আত্মসাৎকৃত টাকা পরিশোধ করেছেন। আত্মসাতের দায় স্বীকার ও টাকা পরিশোধ করায় তার দুর্নীতির প্রমাণ তিনি নিজেই করেছেন। এতে তিনি দণ্ডবিধির ৪০৯ ও দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন-১৯৪৭-এর ৫(২) ধারা লঙ্ঘন করেছেন, যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

বিষয় : দুদক জনতা ব্যাংক মামলা

মন্তব্য করুন