মাস্ক না পরায় ঢাকা-চট্টগ্রামে ৫৭ জনকে জরিমানা

প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২০       প্রিন্ট সংস্করণ

সমকাল প্রতিবেদক ও চট্টগ্রাম ব্যুরো

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে মানুষকে মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিত করতে মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। মাস্ক না পরায় গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রামে ৫০ জন এবং বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুরে সাতজনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানগুলোয় জরিমানার পাশাপাশি মানুষকে সচেতন করে তুলতেও প্রচার চালানো হচ্ছে।
র‌্যাব-৪-এর সহকারী পুলিশ সুপার জিয়াউর রহমান চৌধুরী জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার বিকেলে মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজের সামনে অভিযান চালানো হয়। এ সময় মাস্ক না পরে বাইরে বের হওয়ায় সাতজনকে মোট দুই হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া ২০০ দিনমজুর ও রিকশাচালকের মধ্যে মাস্ক বিতরণের পাশাপাশি করোনার ব্যাপারে সচেতনতামূলক প্রচার চালানো হয়েছে। র‌্যাবের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, মাস্ক না পরার অপরাধে চট্টগ্রামে ৪২টি মামলায় ৫০ জনকে জরিমানা করেছেন জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নগরের কয়েকটি এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। এতে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা। এ সময় নগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। চট্টগ্রাম নগরের অন্যতম প্রধান বিনোদন কেন্দ্র ফয়'স লেকের চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা এলাকায় বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার ও সচেতনতা সৃষ্টির জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলী হাসান। তিনি ১৯টি মামলায় ২৭ জনকে দুই হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করেন। এ ছাড়া নগরের কাজীর দেউড়ির শিশুপার্ক, ডিসি হিল ও শিল্পকলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৩টি মামলায় ১৩ জনকে দুই হাজার ১৫০ টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারজান হোসেন। অন্যদিকে পতেঙ্গার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মুখে মাস্ক না পরায় ১০টি মামলায় ১০ জনকে ৮৫০ টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জিল্লুর রহমান।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলী হাসান বলেন, যৌক্তিক কারণ ছাড়াই বিভিন্ন বয়সী মানুষ মাস্ক না পরে রাস্তায় ঘোরাঘুরি করছে। মানুষ এতই অসতর্ক যে, কোলের শিশুকেও মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে আনছে। বিষয়টি খুবই উদ্বেগের।