চাকরি দেওয়ার নামে ফাঁদে ফেলে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া বিভিন্ন চক্রের ২৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৪। রোববার রাজধানীর মিরপুর, ভাটারা, সাভার ও আশুলিয়া এলাকায় পৃথক অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় চাকরিপ্রার্থী অর্ধশত ভুক্তভোগীকেও উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব সূত্র জানায়, মিরপুরের শাহ আলীর মুক্ত বাংলা শপিং কমপ্লেক্সে প্রসেস সিকিউরিটি সার্ভিস নামের প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ছয় প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো- মোসলেহ উদ্দিন, ফজলুল ইসলাম ওরফে সুনাম, আবদুল মান্নান, রেজওয়ান মাহমুদ রনি, রাজু চন্দ্র শর্মা ও সাখাওয়াত হোসেন সজিব। সেখানে পাওয়া যায় ৬৫টি জীবনবৃত্তান্ত ফরম, তিনটি সিল, একটি ব্যানার ও চারটি ডায়েরি। চারজন চাকরিপ্রত্যাশীও সেখানে ছিলেন।

অপরদিকে কাফরুলের সেনপাড়া পর্বতা এলাকার ওয়েস্টার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড থেকে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো- আল রাব্বি হাসান ওরফে পরিতোষ আওয়াল, নুর কালাম, হাসিবুর রহমান, মো. ফয়েজ ও মামুন মিয়া। সেখানে পাওয়া যায় দুটি ভর্তির আবেদন বই, দুটি অঙ্গীকারনামা বই, চারটি সিল, একটি ব্যানার, সাতটি আইডি কার্ড, তিনটি টাকা জমার রশিদ বই, একটি টাকার খতিয়ান বই ও নগদ আট হাজার ৩৯৬ টাকা। সেখানে ১৬ জন ভুক্তভোগীকেও পাওয়া যায়।

এদিকে ভাটারার প্রগতি সরণির নর্দা এলাকায় এমিকন সিকিউরিটি সার্ভিস নামের প্রতিষ্ঠান থেকে দুই প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলো- গোলাম মোস্তফা ও তোফাজ্জল হোসেন। অভিযানে জব্দ করা হয় ২২টি চাকরির বিজ্ঞাপন, ১৮টি ব্যাংকে টাকা জমার রশিদ, সাতটি রেজিস্ট্রার বই, ৬৫টি জীবন বৃত্তান্ত ফরম, ৫০টি লিফলেট, ৭১টি বিজ্ঞাপন ও আটটি সিল। সেখান থেকে নয়জন ভুক্তভোগীকেও উদ্ধার করা হয়।

আরেক অভিযানে ঢাকার আশুলিয়ার টোংগাবাড়ি এলাকার ভুয়া প্রতিষ্ঠান জিম সিকিউরিটি লিমিটেড থেকে ১৪ প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলো- সোহেল রানা, মো. ইমরান, রাব্বি মাহমুদ, ইব্রাহিম শেখ, চয়ন বাড়ৈ, মো. ফাহাদ, মো. হাবিব, মো. রাসেল, বাদল আহমেদ, মো. তাওসিফ, ইমরুল কায়েস, মোস্তাফিম মজরিনা ওরফে হ্যাপি, হালিমা আক্তার ও জহুরা আক্তার বিথি। সেখানে পাওয়া গেছে ৪০টি নিয়োগ বিজ্ঞাপন ফরম, তিনটি ভর্তি ফরম, সাতটি হলফনামা, ১০টি আইডি কার্ড ও সাতটি যোগদানপত্র। ১৫ জন ভুক্তভোগীকেও উদ্ধার করা হয়েছে।

এছাড়া ঢাকার সাভারেরর কালমা থেকে আয়কর অফিসে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণায় জড়িত অভিযোগে গিয়াস সরদার নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। তার কাছ থেকে দু'টি ভুয়া নিয়োগপত্র জব্দ করা হয়েছে।