কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের সাবেক আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা আতিক উল্যাহ চৌধুরী হত্যা মামলার রায় বুধবার

গত ১৬ নভেম্বর মামলাটি রায় ঘোষণার জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু রায় প্রস্তুত না হওয়ায় ওইদিন ঢাকার এক নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান ২ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেন।

গত ১০ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের দিন ১৮ অক্টোবর ধার্য করেছিলেন আদালত। ওইদিনও রায় প্রস্তুত না হওয়ায় তা পিছিয়ে ১৬ নভেম্বর ধার্য করা হয়।

২০১৩ সালের ১০ ডিসেম্বর নিখোঁজ হন আতিক উলল্গ্যাহ চৌধুরী। পরদিন দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের দোলেশ্বর এলাকার একটি হাসপাতালের পাশ থেকে তার আগুনে পোড়া বিকৃত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

ওই ঘটনায় আতিক উল্যাহর ছেলে কোন্ডা ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান ফারুক চৌধুরী দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা করেন। পুলিশ মামলা তদন্ত করে আটজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করে। ২০১৫ সালের ২ জুলাই আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন।